বিকাল ৪:২৮ শুক্রবার ৪ঠা ডিসেম্বর, ২০২০ ইং

ব্রেকিং নিউজ:

কুমিল্লা দেবিদ্বারে ৫০ টাকার লোভ দেখিয়ে ৭ বছরের শিশুকে ধর্ষণ। | কুমিল্লা সদরে ডিবি পুলিশের অভিযানে অস্ত্র ও ৫ শত পিছ ইয়াবাসহ এক এক যুবক। | সিলেট চেম্বারের পরিচালনা পরিষদের ২০১৯-২০২১ সাল মেয়াদের দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত | কুমিল্লা সদর দক্ষিণে যাত্রীবাহি বাসচাপায় ৩ মোটরসাইকেল আরোহী নিহত। | মাধবপুরে দুই কেজি গাঁজা সহ ২ মাদক পাচারকারী আটক | ছেলের জন্য সকলের কাছে দোয়া চাইলেন ক্রিকেটার রুবেল | পুত্র সন্তানের বাবা হলেন রুবেল, মা-ছেলে দুজনেই সুস্থ আছেন | মাদক চোরাকারবারীদের ফাঁদে পরে, বিলিনের পথে মাধবপুরের চা শিল্প! | কুমিল্লা সদরে ট্রেনে কাটা পড়ে দুই ষ্কুল শিক্ষার্থী নিহত। আহত-৩ | কুমিল্লায় গোয়েন্দা পুলিশের অভিযানে ৫ হাজার পিছ ইয়াবাসহ সাংবাদিক শামীম আটক। |

যাদুকাটা নদীতে অবৈধভাবে বালু উত্তোল

নিউজ ডেস্ক | জাগো প্রতিদিন .কম
আপডেট : June 1, 2018 , 6:57 am
ক্যাটাগরি : অপরাধ ও দুর্নীতি
পোস্টটি শেয়ার করুন

সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলায় যাদুকাটা নদীতে অবৈধভাবে ড্রেজার মেশিন দিয়ে অবাধে বালু উত্তোলন করছেন প্রভাবশালীরা। বালু উত্তোলনের মাধ্যমে প্রতিদিন প্রায় বিশ লাখ টাকার বেশি হাতিয়ে নিচ্ছেন সংঘবদ্ধ চাঁদাবাজ ও ড্রেজার মালিকরা। এতে হুমকির মুখে পড়েছে পাশ্ববর্তী তিনটি গ্রাম। অবৈধ মেশিন দিয়ে বালু উত্তোলন করায় বেকার হয়ে পড়েছেন হাজার হাজার শ্রমিক।

সরেজমিনে জানা যায়, সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার বাদাঘাট (উত্তর) ইউনিয়নের ও বিশ্বরপুর উপজেলার দক্ষিণ বাদাঘাট ইউনিয়নের মাঝে দিয়ে বয়ে গেছে যাদুকাটা নদী। উপজেলার মিয়ারচর, সত্রীশ, মনবেগ গ্রাম সংলগ্ন এ নদীতে বালু উত্তোলন করা হচ্ছে অবাধে।শতাধিক ড্রেজার মালিকরা প্রতিদিন দিনে ও রাতে শত শত বড় বড় স্টিলবডি নৌকায় করে স্থানীয় চাঁদাবাজদের সহযোগিতায় বালু উত্তোলন করছেন। নৌকা প্রতি ১০থেকে ১২হাজার টাকার বিনিময়ে বালু উত্তোলন করে স্টিলবডিতে লোড করে দিচ্ছে। এই বিষয়ে স্থানীয়রা অভিযোগ করলেই তাদের ওপর চড়াও হচ্ছেন ড্রেজার মালিক ও চাদাঁবাজরা। অবৈধ বালু উত্তোলনে হুমকির মুখে পড়েছে ৩টি গ্রামসহ নদীর তীরবর্তী দুই ইউনিয়নের হাজার হাজার বাড়ি-ঘর। বালু উত্তোলনের সময় মেশিনের প্রচণ্ড শব্দে বসবাস করতে পারছেন না স্থানীয়রা। পড়াশুনায় বিঘ্ন ঘটছে হাজার হাজার শিক্ষার্থীর। কর্মহীন হয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছে প্রায় দশ হাজারের বেশি শ্রমিক।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্থানীয়রা জানান, যাদুকাটা নদীতে শত শত স্টিলের তৈরি বড় বড় নৌকা নোঙ্গর করে রাখা থাকে সারাক্ষণ। বেশীরভাগ সময় রাতে শতাধিক ড্রেজার মেশির দিয়ে বালু ও পাথর উত্তোলন করা হয়। প্রতিবাদ করলে মামলার ভয় দেখানো হয় তাদের। ড্রেজার দিয়ে বালু উত্তোলন সরকারিভাবে নিষিদ্ধ হলেও অবাধে বালু উত্তোলন করা হচ্ছে।

এ নদীতে কর্মরত শ্রমিকদের অভিযোগ, তারা বালু নদী থেকে উত্তোলন করেন। কিন্তু ড্রেজার মেশিন দিয়ে বালু উত্তোলন করায় বেকার হয়ে পড়েছেন। কাজ পেতে অবৈধ ড্রেজার মেশিন বন্ধ করার দাবি জানিয়েছেন তারা।

এ ব্যাপারে তাহিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নন্দন কান্তি ধর বলেন, মিয়ারচড়, সত্রীশ, মনবেগ গ্রাম সংলগ্ন নদীতে অবৈধভাবে ড্রেজার মেশিন চলার খরব পেয়ে তা বন্ধ করে দিয়েছি। অবৈধভাবে কোন ড্রেজার চলার কোন সুযোগ কেউ পাবে না। যারা চালাবে তাদের কঠোর হস্তে দমন করা হবে।

এভাবে বালু উত্তোলন বন্ধে জেলা প্রশাসক ও সুনামগঞ্জ পুলিশ সুপারের হস্তক্ষেপ চেয়েছেন এলাকাবাসী।