দুপুর ২:৫৫ শুক্রবার ১৯শে জুলাই, ২০১৯ ইং

স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ‘সংশোধন’

নিউজ ডেস্ক | জাগো প্রতিদিন .কম
আপডেট : মার্চ ২৯, ২০১৮ , ৯:২৪ পূর্বাহ্ণ
ক্যাটাগরি : বিনোদন
পোস্টটি শেয়ার করুন

এ সময়ের জনপ্রিয় মুখ ও তরুণ নির্মাতা রাসেল মিয়া।  তিনি স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ‘সংশোধন’ নির্মান করে দর্শকমহলে বেশ জনপ্রিয়তা পেয়েছে।  একটি দিকনির্দেশক ভিডিও চিত্রে একজন মানুষ, একটা সংসার, একটা গ্রামকে মুহূর্তেই ভালোর দিকে বদলে যেতে সহযোগীতা করতে পারে তার প্রমাণ দেখিয়েছেন এই তরুণ নির্মাতা।

এই স্বল্প সময়ের ৪-৫ মিনিটের ভিডিও চিত্র গুলি বর্তমানে সামাজিক উন্নয়নের ভূমিকা রাখছে ব্যাপক।  ইতিমধ্যে ‘সংশোধন’ ৭৫টি পর্বের মধ্যে অধিকাংশ

পর্বই  ভিউয়ারে বিভিন্ন ফেসবুকে, লাইক পেইজে  শেয়ারের মাধ্যমে কোটি মানুষের মনে জায়গা করে নিয়েছে স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ‘সংশোধন’।  এই স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রটি কাহিনী সংলাপ রচনা ও পরিচালনা থেকে শুরু করে মূল চরিত্রে অভিনয় করেন রাসেল মিয়া নিজেই।

নিম্ন আয়ের শ্রমজীবি মানুষের সাথে অকারনে খারাপ আচরন, পথ শিশুদের জীবনী, পরকীয়া, ইভটিজিং, বাল্য বিবাহ, নারী নির্যাতন, পুরুষ নির্যাতন, জুয়াড়ীর জীবন, অর্থ লোভের কুফল, বিবাহ বিচ্ছেদের কারন, এতিমের ঈদ, মায়ের প্রতি সন্তানের অবিচার, নকল সুন্দরের পরিনতি, মাদক, ছাত্র, শিক্ষক, প্রবাসী জীবন, ব্যাচলর জীবনের বিড়ম্বনা, বিধবার জীবন, ডাক্তার সেবা, নায্য বিচার, যেীতুক, আইন, সংসারের জটিলতা, দালালী, পোষাক, পতিতার জীবন, ছবি ব্যবসা, নামাজ, কোচিং বানিজ্য, ফরমালিন ইত্যাদি বিষয়ের উপর ভিডিও চিত্র নির্মানের মধ্যে দিয়ে সমাজ সেবায় এগিয়ে আসার তীব্র ইচ্ছা পোষন করেন রাসেল মিয়া।

অভিনেতা ও নির্মাতা রাসেল মিয়া বলেন, ‘শুধু অন্য, বস্ত্র দিয়ে অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ালেই মানুষ উপকৃত হবেন বিষয়টি তা নয়।  ভিডিও চিত্রের মাধ্যেমেও মানুষের পাশে দাঁড়ানো সম্ভব বলে আমি মনে করি। ‘

রাসেল মিয়া সকলের উদ্যেশে বলেন, ‘আমার নির্মিত পর্ব গুলি আগে দেখুন, দেখার পরে আপনারা যদি মনে করেন এই সংশোধন চলচ্চিত্র, ভিডিও চিত্রের মধ্যে দিয়ে সমাজ সেবায় এগিয়ে আসছে তাহলে সংশোধনের সাথেই থাকুন।  সেই সাথে কৃতজ্ঞতা শিকার করেন নিস্বার্থ ভাবে সংশোধন প্রচারে এগিয়ে আশা ফেইসবুকার ফেইজার ইউটিউবার সকল বন্ধুদের।