দুপুর ১:৪৭ শুক্রবার ১৯শে জুলাই, ২০১৯ ইং

সানাইয়ের সুরে…

নিউজ ডেস্ক | জাগো প্রতিদিন .কম
আপডেট : মার্চ ২৯, ২০১৮ , ৯:২৩ পূর্বাহ্ণ
ক্যাটাগরি : বিনোদন
পোস্টটি শেয়ার করুন

‘অনেকেই চলচ্চিত্রে নাম লেখানোর স্বপ্ন দেখেন।  কিন্তু আমি চলচ্চিত্রে আসার স্বপ্ন দেখিনি।  হঠাৎ এসে নতুন স্বপ্ন বুনতে শুরু করেছি।  এখানে এসে অচেনা পথকে নতুন করে আবিস্কার করেছি।  নতুন সম্ভাবনার দুয়ার খুলে যাচ্ছে।  সত্যিই আমি ভাগ্যবান। ‘ কথাগুলো চলচ্চিত্রে নবাগত অভিনেত্রী সানাইয়ের।  পুরো নাম সানাই মাহবুব সুপ্রভা।  মিডিয়াপাড়ায় সবাই তাকে এখন সানাই নামেই চেনেন।  বর্তমানে এ নায়িকার হাতে রয়েছে পাঁচটি ছবি।  এগুলো হলো- মোস্তাফিজুর রহমান বাবুর

‘প্রতীক্ষা’, ‘প্রতিশোধ’, বাবু সিদ্দিকীর ‘সুপ্ত আগুন : দ্য হিডেন ফায়ার’, ‘ময়নার ইতিকথা’ এবং দেওয়ান নাজমুলের ‘শালবনের মহুয়া’।

২০১৭ সালের জুনে বিনোদন অঙ্গনে যাত্রা শুরু হয় সানাইয়ের।  প্রথমে একটি ফ্যাশন হাউসের পোশাক গায়ে জড়ান তিনি।  পরে আরেকটি ফটোশুটের ডাক পান।  কিন্তু তার ক্ষুদ্র ক্যারিয়ারের মোড় ঘুরিয়ে দেয় একটি ‘ফ্যাশন শো’।  গুলশানের ওই শো শেষে ‘প্রেমের তাজমহল’ খ্যাত পরিচালক গাজী মাহবুব তাকে তার ছবিতে অভিনয়ের প্রস্তাব দেন।  ওই নির্মাতার ‘ভালোবাসা ২৪ইন্টু৭’ ছবিতে জায়েদ খানের বিপরীতে চুক্তিবদ্ধ হন তিনি।  ঘটা করে মহড়াও হয় ছবির।  যদিও নানা জটিলতায় এর কাজ বন্ধ রয়েছে।  ফলে ক্যারিয়ারের শুরুতে সানাই একটা ধাক্কা খেলেন।  সেখান থেকেই ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা করতেই তার হাতে আসে কয়েকটি ছবি।  এ যেন মেঘ না চাইতেই বৃষ্টি!
সানাই তার নতুন ছবি নিয়ে বলেন, আমি খুব আশাবাদী বাবু সিদ্দিকীর ‘সুপ্ত আগুন :দ্য হিডেন ফায়ার’ নিয়ে।  এটি অ্যাকশনধর্মী ছবি।  এ ধরনের ছবিতে আমার কাজের খুব আগ্রহ।  আর ময়নার ইতিকথা ছবিটাও ভালো হবে।  এখানে আমি নাম ভূমিকায় অর্থাৎ ময়না চরিত্রে আমাকে দেখা যাবে।  ১৩ এপ্রিল ছবিটির শুটিং শুরু হবে।  ভিন্নধর্মী গল্পের ছবিটিতে আমার বিপরীতে অভিনয় করেছেন নবাগত এক নায়ক।  প্রতিবাদী ‘ময়না’ চরিত্রটি অনেক চ্যালেঞ্জিং।  আমি নিজেও চ্যালেঞ্জ নিয়ে কাজ করতে পছন্দ করি।  একটি মেয়ে কীভাবে জীবনের সঙ্গে যুদ্ধ করে তা দেখানো হবে।  জীবনযুদ্ধে সামনের দিকে এগিয়ে যওয়ার গল্পের এই ছবিটি দর্শকদের মন জয় করবে।
সানাইয়ের বাবা একজন ব্যাংকার, মা স্কুল শিক্ষিকা।  এমন পরিবার থেকে সিনেমাপাড়া মাড়ানো কতটা দুঃসাহসিক কাজ ছিল? এর উত্তরে সানাই বলেন, ‘খুবই কঠিন।  এখনও তারা পুরোপুরি মত দেননি।  তবে আমার জেদের কারণে তারা চুপচাপ আছেন।  আশা করছি জেদের জয় হবে।  জেদ করে অনেকে ঠকেছে।  আমি ঠকবা না।  বাবা-মা ছোটবেলা থেকেই চাইতেন নাচ গান করি, তবে সেটা নিজের দক্ষতা বাড়ানোর জন্য।  এগুলো সবার সামনে শো করি এটা চাইতেন না।  বাবা-মাকে বলে ষাট ভাগ রাজি করিয়েছি।  আশা করছি চলচ্চিত্রে আমার সাফল্য এলে সব ঠিক হয়ে যাবে।  এ কারণেই খুব মনোযোগ দিয়ে কাজ করছি।  সাফল্য আমাকে পেতেই হবে।  আমি যে নতুন স্বপ্ন দেখতে শুরু করেছি।  সেই স্বপ্নের পথ অনেক দীর্ঘ, অনেক কঠিন; তা আমি জানি।  আমাকে আগে স্বপ্নের সিঁড়িতে উঠতে হবে।  হ্যাঁ, আমি সিঁড়িতেও উঠতে পেরেছি।  আমার হাতে ছবিগুলো তারই প্রমাণ।
সানাই পরিকল্পনা করে কোনো কিছু করেন না।  তিনি বলেন, ‘আমি ভীষণ খুঁতখুঁতে।  সবকিছু ঠিকঠাকভাবে করা চাই-ই চাই।  জীবন অনেক ছোট।  এই সীমিত সময়ে নিজেকে নিজের মতো গুছিয়ে পথ চলতেই আমার যত আনন্দ।