রাত ১২:১৫ বুধবার ১লা ডিসেম্বর, ২০২০ ইং

ব্রেকিং নিউজ:

কুমিল্লা দেবিদ্বারে ৫০ টাকার লোভ দেখিয়ে ৭ বছরের শিশুকে ধর্ষণ। | কুমিল্লা সদরে ডিবি পুলিশের অভিযানে অস্ত্র ও ৫ শত পিছ ইয়াবাসহ এক এক যুবক। | সিলেট চেম্বারের পরিচালনা পরিষদের ২০১৯-২০২১ সাল মেয়াদের দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত | কুমিল্লা সদর দক্ষিণে যাত্রীবাহি বাসচাপায় ৩ মোটরসাইকেল আরোহী নিহত। | মাধবপুরে দুই কেজি গাঁজা সহ ২ মাদক পাচারকারী আটক | ছেলের জন্য সকলের কাছে দোয়া চাইলেন ক্রিকেটার রুবেল | পুত্র সন্তানের বাবা হলেন রুবেল, মা-ছেলে দুজনেই সুস্থ আছেন | মাদক চোরাকারবারীদের ফাঁদে পরে, বিলিনের পথে মাধবপুরের চা শিল্প! | কুমিল্লা সদরে ট্রেনে কাটা পড়ে দুই ষ্কুল শিক্ষার্থী নিহত। আহত-৩ | কুমিল্লায় গোয়েন্দা পুলিশের অভিযানে ৫ হাজার পিছ ইয়াবাসহ সাংবাদিক শামীম আটক। |

শাশুড়িকে মারধর করা গৃহবধূ গ্রেপ্তার

নিউজ ডেস্ক | জাগো প্রতিদিন .কম
আপডেট : May 30, 2018 , 4:07 pm
ক্যাটাগরি : আর্ন্তজাতিক,নির্বাচিত
পোস্টটি শেয়ার করুন

পূজা বা কোনও কাজে গাছের ফুল তুলেছিলেন। আর সেটাই যেন ‘অপরাধ’ হয়ে দাঁড়াল। প্রকাশ্যে চড়, থাপ্পড়ের পাশাপাশি চলল চুলের মুঠি ধরে মারধর। অশীতিপর বৃদ্ধার চোখের জলও থামাতে পারেনি সেই অত্যাচার। অনবরত ছেলের বউয়ের হাতে লাঞ্ছিত হতে থাকেন বৃদ্ধা।

ফেসবুকে এই ভিডিও দেখে চুপ থাকতে পারেননি দক্ষিণ কলকাতার বাঁশদ্রোণী থানার পুলিশ কর্মকর্তা শুভ্র চক্রবর্তী। খোঁজ শুরু করেন ভাইরাল হওয়া ভিডিওর চরিত্রদের। ফেসবুকে যার অ্যাকাউন্ট থেকে ভিডিওটি দেখতে পান, প্রথমে সেই রন্তু সেনগুপ্তকে মেসেজ করে বাঁশদ্রোণী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা।

অভয় দেয়া হয়, পরিচয় গোপন রাখা হবে। কিন্তু, চেষ্টা বৃথা যায়। পুলিশি বিষয় ‘এড়িয়ে’ যান রন্তু। কিন্তু দমতে রাজি ছিলেন না বাঁশদ্রোণী থানার কর্মকর্তারা। প্রোফাইলের একটি ছবি থেকে রন্তুর মোটরসাইকেলের নম্বর পান তারা। সেই নম্বর ধরেই তার বাড়িতে হাজির হয় পুলিশ। উপায় না দেখে ক্যানিংয়ের ভোলা বাজারের তরুণ চক্রবর্তীর থেকে ভিডিও পাওয়ার কথা পুলিশকে জানান রন্তু। এবার খোঁজ শুরু হয় তরুণ চক্রবর্তীর।

পুলিশের দল হাজির হলে, নিজে থেকেই সাহায্যে এগিয়ে আসেন পেশায় চিকিৎসক তরুণ চক্রবর্তী।

পুলিশকে তিনি জানান, কলকাতার মেডিক্যাল রিপ্রেজিন্টিভ সুমন তাকে ভিডিওটি পাঠিয়েছিল। আরও জানা যায়, ঘটনাটি গড়িয়া এলাকার পঞ্চাননতলার। নম্বর নিয়ে চটজলদি সুমনের সঙ্গে যোগাযোগ করেন বাঁশদ্রোণী থানার পুলিশ কর্মকর্তারা।

কিন্তু ফোনে কথা বলার পর হঠাৎই ফোন বন্ধ করে দেন সুমন। তবে হাল ছাড়তে নারাজ ছিলেন পুলিশ কর্মকর্তারা। বৃদ্ধাকে ন্যায় পাইয়ে দিয়ে বদ্ধপরিকর কর্মকর্তারা হাজির হন গড়িয়া এলাকার পঞ্চাননতলায়। হাতে আক্রান্ত বৃদ্ধা ও অভিযুক্ত নারীর ছবি। এমন সৎ উদ্দেশ্যে সাফল্য মেলার ছিলই, মিললও বটে। অশীতিপর যশোদা পালকে খুঁজে বের করেন পুলিশ কর্মকর্তারা।

নিজের বাড়িতেই ছেলের বউ স্বপ্নার হাতে নিত্য অপমানিত, লাঞ্ছিত হতেন বৃদ্ধা। সেদিনও সকালে শাশুড়ির ওপর হাত তোলেন স্বপ্না। সেই ভিডিওই রেকর্ড করে সোশ্যাল সাইটে ছড়িয়ে দেন প্রতিবেশী সুমন।

স্বপ্না পাল আপাতত পুলিশ হেফাজতে। তার বিরুদ্ধে মামলা করেছে বাঁশদ্রোণী থানার পুলিশ। জানানো হয়েছে, স্বপ্নার স্বামী রঞ্জিতকে।