সকাল ৭:৫৬ সোমবার ৩০শে নভেম্বর, ২০২০ ইং

ব্রেকিং নিউজ:

কুমিল্লা দেবিদ্বারে ৫০ টাকার লোভ দেখিয়ে ৭ বছরের শিশুকে ধর্ষণ। | কুমিল্লা সদরে ডিবি পুলিশের অভিযানে অস্ত্র ও ৫ শত পিছ ইয়াবাসহ এক এক যুবক। | সিলেট চেম্বারের পরিচালনা পরিষদের ২০১৯-২০২১ সাল মেয়াদের দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত | কুমিল্লা সদর দক্ষিণে যাত্রীবাহি বাসচাপায় ৩ মোটরসাইকেল আরোহী নিহত। | মাধবপুরে দুই কেজি গাঁজা সহ ২ মাদক পাচারকারী আটক | ছেলের জন্য সকলের কাছে দোয়া চাইলেন ক্রিকেটার রুবেল | পুত্র সন্তানের বাবা হলেন রুবেল, মা-ছেলে দুজনেই সুস্থ আছেন | মাদক চোরাকারবারীদের ফাঁদে পরে, বিলিনের পথে মাধবপুরের চা শিল্প! | কুমিল্লা সদরে ট্রেনে কাটা পড়ে দুই ষ্কুল শিক্ষার্থী নিহত। আহত-৩ | কুমিল্লায় গোয়েন্দা পুলিশের অভিযানে ৫ হাজার পিছ ইয়াবাসহ সাংবাদিক শামীম আটক। |

পেটপুরে খেয়েই চ্যাম্পিয়ন হবে ব্রাজিল!

নিউজ ডেস্ক | জাগো প্রতিদিন .কম
আপডেট : May 23, 2018 , 1:13 pm
ক্যাটাগরি : খেলাধুলা
পোস্টটি শেয়ার করুন

যে কোনো সাফল্যের পেছনে খাওয়া দাওয়ার একটা ভূমিকা তো থাকেই। ভালো খাওয়া মানে শরীর ও মন থাকবে ভালো। স্বাস্থ্যকর খাবার তাই জরুরি। আর সেটা যদি হয় সেরা পাচকের তাহলে তো কথাই নেই! ২৩ বছর ধরে ব্রাজিল দলের খাবার তৈরি করা আসা জাইমে মাসিয়েল চাইছেন নেইমারদের পেটপুরে খাইয়েই ষষ্ঠবারের মতো বিশ্বকাপ শিরোপা আনিয়ে নেবেন রাশিয়া থেকে! তার খাবার যে যতো ইচ্ছে ততো খাওয়া যায়, নিষেধ নেই কোনো!

ব্রাজিল দলের রান্নাঘরের সাথে মাসিয়েলের পরিচয় আজকের নয়। ২৩ বছর আগে প্রথম ব্রাজিলের খেলোয়াড়দের জন্য তার রান্নার শুরু। তারপর থেকে যখনই কোনো টুর্নামেন্ট বা আসর মাসিয়েলের দায়িত্ব রান্নাঘরের। তার মাঠটা হলো রন্ধনশালা। নিজের পোষাকের রং সাদা। ওটারও তাই। ব্রাজিল দলে গেল প্রায় আড়াই দশকে যারা এসেছেন গেছেন তাদের জিভে ঠিকই লেগে আছে তার বিশেষ বিশেষ সব খাবারের স্বাদ।

১৯৯৫ সাল থেকে ব্রাজিলের রন্ধনশালা মাসিয়েলের। এবারো এই সপ্তাহে যেই না ব্রাজিলের খেলোয়াড়, টেকনিক্যাল কমিশনের পা পড়লে তেরেসোপোলিসের গ্রাঞ্জা কোমারিতে তার আগেই অ্যাকশনে নেমে পড়েছেন মাসিয়েল। বহু আগে উরুগুয়ের সীমান্ত এলাকা রিও গ্রান্দে দো সুলে ব্রাজিল দলের সাথে তার পরিচয়। সেই থেকে সম্পর্কটা যেন চীরকালের হয়ে গেল! আর আলাদা হয়নি ব্রাজিল দল ও পাচক মাসিয়েল।

‘সে দলের খাবার বিশেষজ্ঞ। তার খাবার যেন উপহারের মতো। ৪০ জনের বেশি মানুষের খাবার এতো সুন্দর করে রাধে সে এবং তা পুরোপুরি ভিন্নরকমের। অ্যাথলেটদের কমেন্ট আমরা দেখেছি। সেই কোপা আমেরিকার সময় থেকে লম্বা সময় ধরে দলের সাথেই আছে সে। আমরা তাকেই আমাদের খেলোয়াড়দের খাবার রাধার জন্য ডাকি-‘ ব্রাজিল দলের কর্মকর্তা বলেছেন।

বিশেষ খাবারের মধ্যে মাসিয়েল করেন যেমন কলা দিয়ে ক্যান্ডি। খুব স্বাদ। কোচিং স্টাফদের জন্য নাকি এটা ‘টোস্ট’ এর মতো। ব্রাজিল দলের সাথে বহু সফরের অভিজ্ঞতা থেকে মাসিয়েল জানেন কেমন খাবার তৈরি করা দরকার। বাড়িতে মানুষ যে খাবারগুলো মিস করে তার দিকে তার বিশেষ ঝোঁক। খেলোয়াড়দের হাতে এমন চমক দেওয়া খাবার তুলে দিয়ে তৃপ্ত তিনি।

‘ব্রাজিলিয়ান ফুড, ভাত, বিনস, ফারোফা- ওরা সবাই আমার রান্নার ধরন সম্পর্কে এখন জানে। ভারসাম্যপূর্ণ একটা মেন্যু মেনে চলি। ওটা পুষ্টিবিদ ও চিকিৎসকদের তৈরি।’ শেফ বলছিলেন, ‘তাই যে খাবারই করি তা খেতে কোনো বাধা নেই। যে যতো ইচ্ছে খেতে পারে।’