বিকাল ৫:১৩ মঙ্গলবার ১৯শে জানুয়ারি, ২০২১ ইং

ব্রেকিং নিউজ:

কুমিল্লা দেবিদ্বারে ৫০ টাকার লোভ দেখিয়ে ৭ বছরের শিশুকে ধর্ষণ। | কুমিল্লা সদরে ডিবি পুলিশের অভিযানে অস্ত্র ও ৫ শত পিছ ইয়াবাসহ এক এক যুবক। | সিলেট চেম্বারের পরিচালনা পরিষদের ২০১৯-২০২১ সাল মেয়াদের দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত | কুমিল্লা সদর দক্ষিণে যাত্রীবাহি বাসচাপায় ৩ মোটরসাইকেল আরোহী নিহত। | মাধবপুরে দুই কেজি গাঁজা সহ ২ মাদক পাচারকারী আটক | ছেলের জন্য সকলের কাছে দোয়া চাইলেন ক্রিকেটার রুবেল | পুত্র সন্তানের বাবা হলেন রুবেল, মা-ছেলে দুজনেই সুস্থ আছেন | মাদক চোরাকারবারীদের ফাঁদে পরে, বিলিনের পথে মাধবপুরের চা শিল্প! | কুমিল্লা সদরে ট্রেনে কাটা পড়ে দুই ষ্কুল শিক্ষার্থী নিহত। আহত-৩ | কুমিল্লায় গোয়েন্দা পুলিশের অভিযানে ৫ হাজার পিছ ইয়াবাসহ সাংবাদিক শামীম আটক। |

মুক্তিযোদ্ধাদের স্মৃতি ধরতে রাখতে প্রশাসনের অভিনব উদ্যোগ

নিউজ ডেস্ক | জাগো প্রতিদিন .কম
আপডেট : March 7, 2019 , 11:29 am
ক্যাটাগরি : জাতীয়
পোস্টটি শেয়ার করুন

কুড়িগ্রামে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের স্মৃতি ধরে রাখতে তাদের দু’হাতের ছাপ সংগ্রহ করার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে সদর উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে উপজেলা পরিষদ হলরুমে বীরগাথা ডকুমেন্টারি’র মাধ্যমে এ কর্মসূচির উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক সুলতানা পারভীন।

এসময় সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আমিন আল পারভেজ’র সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন পুলিশ সুপার মেহেদুল করিম, সিভিল সার্জন ডা. এসএম আমিনুল ইসলাম, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট জিলুফা সুলতানা, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা আমিনুল ইসলাম মঞ্জু মন্ডল, জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার সিরাজুল ইসলাম টুকু, অধ্যক্ষ রাশেদুজ্জামান বাবু প্রমুখ।

জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে ৯টি উপজেলাতেই সকল জীবিত মুক্তিযোদ্ধাদের স্মৃতি ধরে রাখতে এই কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়। এরই অংশ হিসেবে সদর উপজেলায় ৬১৪ জন মুক্তিযোদ্ধার মধ্যে জীবিত ৩৬৮ জন মুক্তিযোদ্ধাদের দু’হাতের ছাপ নেয়া হচ্ছে তাদের তথ্য ও ছবি সম্বলিত ডকুমেন্টরিতে।

কুড়িগ্রাম জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার সিরাজুল ইসলাম টুকু জানান, নিঃসন্দেহে মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য এটি সম্মানের বিষয়। আগামী প্রজন্ম এর মাধ্যমে আমাদের স্মৃতিচারণ করতে পারবে।

এ ব্যাপারে জেলা প্রশাসক সুলতানা পারভীন জানান, দেশের শ্রেষ্ঠ সন্তান বীর মুক্তিযোদ্ধাদের স্মৃতি ধরে রাখতে জেলা প্রশাসন আগামী ২৬ মার্চের আগেই এই কর্মসূচি শেষ করার উদ্যোগ নিয়েছে। জেলায় পর্যায়ক্রমে জীবিত ২ হাজার ৭৩০ জন মুক্তিযোদ্ধার স্মৃতি ধরে রাখতে এই কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। যা ছয়টি ভলিউমের মাধ্যমে সংরক্ষণ করা হবে।