রাত ৮:৫৮ শুক্রবার ২২শে জানুয়ারি, ২০২১ ইং

ব্রেকিং নিউজ:

কুমিল্লা দেবিদ্বারে ৫০ টাকার লোভ দেখিয়ে ৭ বছরের শিশুকে ধর্ষণ। | কুমিল্লা সদরে ডিবি পুলিশের অভিযানে অস্ত্র ও ৫ শত পিছ ইয়াবাসহ এক এক যুবক। | সিলেট চেম্বারের পরিচালনা পরিষদের ২০১৯-২০২১ সাল মেয়াদের দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত | কুমিল্লা সদর দক্ষিণে যাত্রীবাহি বাসচাপায় ৩ মোটরসাইকেল আরোহী নিহত। | মাধবপুরে দুই কেজি গাঁজা সহ ২ মাদক পাচারকারী আটক | ছেলের জন্য সকলের কাছে দোয়া চাইলেন ক্রিকেটার রুবেল | পুত্র সন্তানের বাবা হলেন রুবেল, মা-ছেলে দুজনেই সুস্থ আছেন | মাদক চোরাকারবারীদের ফাঁদে পরে, বিলিনের পথে মাধবপুরের চা শিল্প! | কুমিল্লা সদরে ট্রেনে কাটা পড়ে দুই ষ্কুল শিক্ষার্থী নিহত। আহত-৩ | কুমিল্লায় গোয়েন্দা পুলিশের অভিযানে ৫ হাজার পিছ ইয়াবাসহ সাংবাদিক শামীম আটক। |

সন্তানকে বাঁচাতে নদীতে ঝাঁপ, মিলল মায়ের লাশ

নিউজ ডেস্ক | জাগো প্রতিদিন .কম
আপডেট : February 26, 2019 , 1:23 pm
ক্যাটাগরি : গনমাধ্যম
পোস্টটি শেয়ার করুন

সন্তানকে বাঁচাতে চলন্ত লঞ্চ থেকে নদীতে ঝাঁপিয়ে পড়া মায়ের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। মুন্সিগঞ্জ সদর উপজেলার চরকেওয়ার ইউনিয়নের আলীরটেক কাউয়াদি গ্রাম সংলগ্ন মেঘনা নদী থেকে মা কহিনুর রহমান ইভার (৩০) মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

মঙ্গলবার বিকেল ৪টার দিকে চর আব্দুল্লাহ নৌ-পুলিশ ফাঁড়ির সদস্যরা নদীতে ভাসমান অবস্থায় ওই নারীর মরদেহ উদ্ধার করে। তবে এখন পর্যন্ত ওই নারীর তিন মাসের সন্তান মোহাম্মদের খোঁজ পাওয়া যায়নি।

কহিনুর রহমান ইভা মুন্সিগঞ্জ শহরের শিলমন্দি এলাকার জিয়াউর রহমানের স্ত্রী। জিয়াউর রহমান একটি কোরিয়ান কোম্পানির প্রকৌশলী বলে জানা গেছে। স্ত্রী-সন্তান নিয়ে ঢাকার মোহাম্মদপুরে থাকেন তিনি। এ ঘটনায় সোমবার মোহাম্মদপুর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করা হয়।

চর আব্দুল্লাহ নৌ-পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মো. বাচ্চু মিয়া বলেন, সোমবার বিকেলে ঢাকার সদরঘাট থেকে ছেড়ে আসা এমভি এমভি হাসান ইমাম-২ লঞ্চযোগে মুন্সিগঞ্জের উদ্দেশে রওনা দেন কহিনুর রহমান ইভা। কিন্তু ভুলক্রমে তিনি চাঁদপুরের দিকে চলে যান।

লঞ্চটি চাঁদপুরের ষাটনল এলাকার পৌঁছালে তার সন্তান মোহাম্মদ নদীতে পড়ে যায়। এ অবস্থায় সন্তানকে বাঁচাতে মা ইভা মেঘনা নদীতে ঝাঁপ দেন। এরপর মা ও সন্তান দুইজনই নিখোঁজ হন।

ইনচার্জ মো. বাচ্চু মিয়া আরও বলেন, মঙ্গলবার বিকেলে মেঘনা নদীতে ভাসমান অবস্থায় মা কহিনুর রহমান ইভার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। পরবর্তীতে তার মরদেহ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়। তবে তার নিখোঁজ সন্তানের এখনো খোঁজ মেলেনি।