বিকাল ৪:২৬ রবিবার ১৭ই জানুয়ারি, ২০২১ ইং

ব্রেকিং নিউজ:

কুমিল্লা দেবিদ্বারে ৫০ টাকার লোভ দেখিয়ে ৭ বছরের শিশুকে ধর্ষণ। | কুমিল্লা সদরে ডিবি পুলিশের অভিযানে অস্ত্র ও ৫ শত পিছ ইয়াবাসহ এক এক যুবক। | সিলেট চেম্বারের পরিচালনা পরিষদের ২০১৯-২০২১ সাল মেয়াদের দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত | কুমিল্লা সদর দক্ষিণে যাত্রীবাহি বাসচাপায় ৩ মোটরসাইকেল আরোহী নিহত। | মাধবপুরে দুই কেজি গাঁজা সহ ২ মাদক পাচারকারী আটক | ছেলের জন্য সকলের কাছে দোয়া চাইলেন ক্রিকেটার রুবেল | পুত্র সন্তানের বাবা হলেন রুবেল, মা-ছেলে দুজনেই সুস্থ আছেন | মাদক চোরাকারবারীদের ফাঁদে পরে, বিলিনের পথে মাধবপুরের চা শিল্প! | কুমিল্লা সদরে ট্রেনে কাটা পড়ে দুই ষ্কুল শিক্ষার্থী নিহত। আহত-৩ | কুমিল্লায় গোয়েন্দা পুলিশের অভিযানে ৫ হাজার পিছ ইয়াবাসহ সাংবাদিক শামীম আটক। |

এক ব্যবসায়ীকে ফাঁসাতে মিথ্যা ধর্ষণের মামলা

নিউজ ডেস্ক | জাগো প্রতিদিন .কম
আপডেট : February 7, 2019 , 2:02 pm
ক্যাটাগরি : অপরাধ ও দুর্নীতি
পোস্টটি শেয়ার করুন

রংপুরে পাওনা টাকা ফেরত চাওয়ায় জাহিদুল ইসলাম মিঠু নামে এক ব্যবসায়ীকে ধর্ষণের মিথ্যা অভিযোগ দিয়ে ফাঁসানোর অভিযোগ উঠেছে। বৃহস্পতিবার বিকেলে রংপুর রিপোর্টার্স ক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে মহানগরীর তালুক রঘু (বগুড়াপাড়া) এলাকার ভুক্তভোগী পরিবার এ অভিযোগ করে।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে জাহিদুল ইসলাম মিঠুর বড় ভাই শাহিন আলম বলেন, আমার ভাই একজন ধার্মিক প্রকৃতির লোক। ১২ বছর আগে তিনি বিয়ে করেছেন। তার স্ত্রী ও সন্তান আছে। সারাদিন দোকানে থাকার পর সন্ধ্যায় বাড়ি যান এবং রাতে তিনি কোথাও বের হন না। জাহিদুল ইসলাম মিঠুর কাছ থেকে ফুফাতো বোন সাবিনা বেগম পঞ্চাশ হাজার টাকা ধার নিয়েছেন। সাবিনার স্বামী টাঙ্গাইলে থাকায় ওই পাওনা টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করে একের পর এক সময় নেন সাবিনা।

পরে এ নিয়ে মিঠু মামাতো বোন সাবিনাকে টাকার জন্য চাপ সৃষ্টি করলে ক্ষুদ্ধ হয়ে গত ১২ জানুয়ারি রাত সাড়ে ১১টার দিকে তাকে ধর্ষণ করা হয়েছে বলে অভিযোগ এনে ৩ ফেব্রুয়ারি নগরীর মাহিগঞ্জ থানায় মিঠুর বিরুদ্ধে মামলা করেন সাবিনা। এ মামলার পর থেকে নানাভাবে ভয়ভীতি ও হুমকি দিয়ে যাচ্ছেন সাবিনা ও তার মামলার দুই সাক্ষী।

কোনো রকম তদন্ত ও মেডিকেল পরীক্ষা ছাড়াই পুলিশ মামলা গ্রহণ করে আসামির অসহায় পরিবারকে হয়রানি করছে। এ মামলার সাক্ষী একই এলাকার ব্যবসায়ী নুর আলম ও সবুজ মিয়ার কাছেও মিঠু কিছু টাকা পেতেন। এ নিয়ে পাওনা টাকা চাওয়াতে বাকবিতণ্ডার ঘটনা ঘটে। তাদের সঙ্গে যোগসাজোস করে সাবিনা মিঠুকে মিথ্যা ধর্ষণ মামলার আসামি করেছেন বলে সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে জাহিদুল ইসলাম মিঠুর বাবা নুরুল ইসলাম ও স্ত্রী শারমিন আকতারসহ পরিবারের অন্য সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

এ ব্যাপারে মেট্রোপলিটন পুলিশের মাহিগঞ্জ থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আখতারুজ্জামান প্রধান জানান, এ ধরণের একটি মামলা হয়েছে। ধর্ষণের বিষয়টি এখনো নিশ্চিত হয়নি। আমরা ঘটনার তদন্ত করছি।