রাত ১১:১২ শুক্রবার ২২শে জানুয়ারি, ২০২১ ইং

ব্রেকিং নিউজ:

কুমিল্লা দেবিদ্বারে ৫০ টাকার লোভ দেখিয়ে ৭ বছরের শিশুকে ধর্ষণ। | কুমিল্লা সদরে ডিবি পুলিশের অভিযানে অস্ত্র ও ৫ শত পিছ ইয়াবাসহ এক এক যুবক। | সিলেট চেম্বারের পরিচালনা পরিষদের ২০১৯-২০২১ সাল মেয়াদের দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত | কুমিল্লা সদর দক্ষিণে যাত্রীবাহি বাসচাপায় ৩ মোটরসাইকেল আরোহী নিহত। | মাধবপুরে দুই কেজি গাঁজা সহ ২ মাদক পাচারকারী আটক | ছেলের জন্য সকলের কাছে দোয়া চাইলেন ক্রিকেটার রুবেল | পুত্র সন্তানের বাবা হলেন রুবেল, মা-ছেলে দুজনেই সুস্থ আছেন | মাদক চোরাকারবারীদের ফাঁদে পরে, বিলিনের পথে মাধবপুরের চা শিল্প! | কুমিল্লা সদরে ট্রেনে কাটা পড়ে দুই ষ্কুল শিক্ষার্থী নিহত। আহত-৩ | কুমিল্লায় গোয়েন্দা পুলিশের অভিযানে ৫ হাজার পিছ ইয়াবাসহ সাংবাদিক শামীম আটক। |

দুধের সাথে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে ধর্ষণ, ভিডিও ধারণ পুলিশ সদস্যর

নিউজ ডেস্ক | জাগো প্রতিদিন .কম
আপডেট : January 20, 2019 , 10:38 am
ক্যাটাগরি : অপরাধ ও দুর্নীতি
পোস্টটি শেয়ার করুন

দুধের সাথে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে এক নারীকে ধর্ষণ এবং পরে ওই ভিডিও দেখিয়ে ব্ল্যাকমেইল করে আরো অনেক বার ধর্ষণের ঘটনায় করা মামলায় পুলিশ সদস্য তরুণ কান্তি বিশ্বাসের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছেন আদালত।

রোববার ঢাকার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-৩ এর বিচারক জয়শ্রী সমাদ্দার পরোয়ানা জারির এ আদেশ দেন।

বাদীপক্ষের আইনজীবী মোহাম্মদ রহমত উল্লাহ জানান, ২০১৭ সালের ১৮ অক্টোবর ঢাকার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে মামলাটি দায়ের করা হয়। এরপর বিচারক মামলাটি তদন্তের জন্য পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) নির্দেশ দেন।

পরে গত বছরের ২০ নভেম্বর পিবিআইয়ের পরিদর্শক শামীম আহমেদ তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করেন।

তিনি বলেন, আজ মামলার ধার্য তারিখ ছিল। বিচারক মামলার প্রতিবেদন আমলে নিয়ে আসামির বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছেন।

ঘটনার সময় তরুণ কান্তি রাজারবাগ পুলিশ লাইন্সে কর্মরত ছিলেন।

মামলার এজাহার থেকে জানা যায়, ২০১৫ সালের মে মাসে পুলিশ সদস্য তরুণ কান্তি বিশ্বাস ওই নারীর ভাড়া করা বাসায় সাবলেট হিসেবে ভাড়া নেন। পরে আসামি তাকে বিভিন্নভাবে কুপ্রস্তাব দেন। এক পর্যায়ে তার স্বামী ঘরে না থাকার সুযোগে দুধের সাথে ঘুমের ওষুধ খাওয়ান সেই পুলিশ সদস্য।

এতে অচেতন হয়ে পড়ায় আসামি নারীর ভিডিও করেন। এরপর ওই নারীকে ভিডিওটি দেখিয়ে অবৈধভাবে শারীরিকভাবে মেলামেশা করতে বাধ্য করেন।