দুপুর ১:৪৩ মঙ্গলবার ১৯শে মার্চ, ২০১৯ ইং

ঘুমন্ত স্বামীর গোপনাঙ্গ কেটে নিলো স্ত্রী!

নিউজ ডেস্ক | জাগো প্রতিদিন .কম
আপডেট : জানুয়ারি ৮, ২০১৯ , ৭:২১ অপরাহ্ণ
ক্যাটাগরি : বিচিত্র সংবাদ
পোস্টটি শেয়ার করুন

পঁচিশ বছর আগে এক ভোরবেলা ঘুম ভেঙে জন ববিট দেখেছিলেন, তার পুরুষাঙ্গটি নেই। ১৯৯৩ সালে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ঘটা যাওয়া সেই ঘটনা নজির হয়ে থেকেছে ইতিহাসে। যৌনাঙ্গ কর্তনের ইংরেজি প্রতিশব্দই হয়ে দাঁড়ায় ‘ববিটিজম’।

জন ববিটের পুরুষাঙ্গ কর্তন করেছিলেন তার তৎকালীন স্ত্রী লোরেনা। সেই সময়ে গণমাধ্যমে ঝড় তোলে এই ঘটনা। জানা যায়, এক কিচেন নাইফ দিয়ে স্বামীর পুরুষাঙ্গটি কেটে হাতে নিয়েই রাস্তা ধরে দৌড়েছিলেন লোরেনা। গোটা পৃথিবী শিউরে উঠেছিল এই নৃশংসতায়। জানা গিয়েছিল, সেই সময়ে লোরেনা প্রকৃতিস্থ ছিলেন না। সাময়িক উন্মাদনার বশে তিনি এই কাণ্ড করে বসেন। কিন্তু এরও কিছু প্রেক্ষিত ছিল। আদালতে লোরেনা জানান, জন নাকি তাকে প্রায়শই ধর্ষণ করতেন। এমনকী, যে সকালে ঘটনাটি ঘটে, তার আগের রাত্রেও জন তাকে ধর্ষণ করেছিলেন।

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম ‘ইনসাইড এডিশন’-এর প্রতিবেদন থেকে জানা গিয়েছে সম্প্রতি ‘এবিসি ২০/২০’ নামের এক টিভি শোয়ে জন ববিট সেই ঘটনার স্মৃতিচারণ করেছেন। জন জানিয়েছেন, রক্তে ভেসে যাওয়া সেই সকালে তিনি ভেবেছিলেন, কোনো দুঃস্বপ্ন দেখছেন। কিন্তু দ্রুত বুঝতে পারেন, কী হয়েছে।

জনের পুরুষাঙ্গটি জনৈক পুলিশ কর্মী খুঁজে পান। দ্রুত তা বরফে চাপা দিয়ে হাসপাতালে পুনঃস্থাপনের জন্য পাঠানো হয়। দীর্ঘ অস্ত্রোপচারের পরে তা জনের দেহে পুনঃস্থাপন করা সম্ভব হয়।

এখন জন সুখী। তার বর্তমান গার্লফ্রেন্ডের সঙ্গে তার মধুর সম্পর্ক। কিন্তু লোরেনাকে ভুলতে পারেননি তিনি। প্রতি বছর ভ্যালেন্টাইন ডে-তে কার্ড পাঠান জন। লোরেনার প্রতি তার ব্যবহারের জন্য তিনি দুঃখিত।