রাত ১১:৪৩ শনিবার ২৫শে মে, ২০১৯ ইং

কুমিল্লায় খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে চার্জগঠন ১৬ জানুয়ারি

নিউজ ডেস্ক | জাগো প্রতিদিন .কম
আপডেট : জানুয়ারি ৭, ২০১৯ , ১২:৫৪ অপরাহ্ণ
ক্যাটাগরি : রাজনীতি
পোস্টটি শেয়ার করুন

কুমিল্লায় বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে বাসে পেট্রলবোমা মেরে ৮ যাত্রী হত্যা মামলার চার্জগঠন ও জামিন আবেদনের পরবর্তী শুনানি আগামী ১৬ জানুয়ারি নির্ধারণ করেছেন কুমিল্লা জেলা ও দায়রা জজ আদালত।

সোমবার দুপুরে কুমিল্লার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ প্রথম আদালতের বিচারক হাবিবুর রহমান এ আদেশ দেন। আদালতের রাষ্ট্রপক্ষের কৌঁসুলি মো. মোস্তাফিজুর রহমান লিটন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, কুমিল্লা জেলা ও দায়রা জজের পদ অবসরজনিত কারণে শূণ্য থাকায় আগামী ১৬ জানুয়ারি মামলার চার্জগঠন ও জামিন আবেদনের পরবর্তী শুনানির দিন নির্ধারণ করা হয়েছে।

আদালত সূত্রে জানা যায়, বিএনপি-জামায়াতসহ ২০ দলীয় জোটের ডাকা হরতাল-অবরোধ চলাকালে ২০১৫ সালের ৩ ফেব্রুয়ারি ভোর রাতে কক্সবাজার থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী আইকন পরিবহনের একটি নৈশ কোচ জেলার চৌদ্দগ্রামের জগমোহনপুর নামক স্থানে পৌঁছালে দুর্বৃত্তরা বাসটি লক্ষ্য করে পেট্রলবোমা নিক্ষেপ করে। এতে আগুনে পুড়ে ঘটনাস্থলে সাতজন ও হাসপাতালে নেয়ার পর একজন মারা যান। ওই ঘটনায় চৌদ্দগ্রাম থানার এসআই নুরুজ্জামান হাওলাদার বাদী হয়ে পরদিন বিশেষ ক্ষমতা আইনে একটি ও বিস্ফোরক আইনে একটিসহ থানায় পৃথক দুটি মামলা দায়ের করেন।

এ দুটি মামলায় পুলিশসহ ৬২ জন সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা চৌদ্দগ্রাম থানার এসআই ইব্রাহিম ২০১৭ সালের ৬ মার্চ আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন। মামলার প্রতিটিতে ৭৮ জনকে চার্জশিটভূক্ত করা হয়। এদের মধ্যে উভয় মামলায় জামায়াতের কেন্দ্রীয় নেতা চৌদ্দগ্রামের সাবেক এমপি ডা. সৈয়দ আবদুল্লাহ মোহাম্মদ তাহেরকে প্রধান আসামি করা হয়। এছাড়া চার্জশিটে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা মনিরুল হক চৌধুরী ও দলের ভাইস চেয়ারম্যান সাংবাদিক শওকত মাহমুদ, দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য এম.কে আনোয়ার, ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিঞা, যুগ্ম মহাসচিব সালাহউদ্দিন আহমেদ, দফতর সম্পাদক অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভীকে হুকুমের আসামি করা হয়।

তদন্ত শেষে ওই দুটি চার্জশিটে মামলার এজাহারভুক্ত আটজনকে অব্যাহতি দেয়া হয়। এদের মধ্যে চৌদ্দগ্রামের চান্দিশকরা গ্রামের সাহাব উদ্দিন পাটোয়ারী বন্দুকযুদ্ধে ও জগমোহনপুর গ্রামের সোহেল সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হন।

এদিকে এ দুটি মামলার চার্জশিটে এজাহার বহির্ভূত বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা সাবেক এমপি মনিরুল হক চৌধুরীসহ স্থানীয় বিএনপি ও জামায়াতের আরও ৩০ জন নেতাকর্মীকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়। পরে আদালতের নির্দেশে ৮ যাত্রী হত্যা মামলাটি অধিকতর তদন্তের জন্য কুমিল্লা জেলা ডিবিতে স্থানান্তর করা হয়। ২০১৭ সালের ১৬ নভেম্বর জেলা ডিবি পুলিশে পরিদর্শক ফিরোজ হোসেন ওই মামলার অধিকতর তদন্ত শেষে বেগম খালেদা জিয়া, বিএনপি নেতা রুহুল কবির রিজভী, মনিরুল হক চৌধুরী, জামায়াত নেতা ডা. সৈয়দ আবদুল্লাহ মো. তাহেরসহ ৭৭ জনের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন।