রাত ২:৫৯ সোমবার ২১শে জুলাই, ২০১৯ ইং

অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখতে যে কৌশল বিএনপির

নিউজ ডেস্ক | জাগো প্রতিদিন .কম
আপডেট : জানুয়ারি ৬, ২০১৯ , ৪:৫০ পূর্বাহ্ণ
ক্যাটাগরি : রাজনীতি
পোস্টটি শেয়ার করুন

একাদশ জাতীয় নির্বাচনে চরম ভরাডুবির পর নিজের অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখতে বিএনপি এখন কী কৌশল গ্রহণ করতে যাচ্ছে- তা নিয়েই সব মহলে চলছে আলোচনা-পর্যালোচনা।

এক্ষেত্রে দলটি সবার আগে যে কাজটি করতে চায় তা হল- খালেদা জিয়াসহ নেতাকর্মীদের জামিন ও কারামুক্তি। এরপর দল গোছানো এবং অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখার বিষয়ে নজর দিতে চায় দলটি। তবে সবকিছুই হবে বাস্তবতার নিরিখে।

দীর্ঘ ১২ বছর ক্ষমতার বাইরে থাকা দলটির নেতারা আগামী দিনের করণীয় নিয়ে নতুন করে চিন্তাভাবনাও শুরু করেছেন। দলের প্রাণশক্তি তৃণমূল নেতাকর্মীদের মনোবল চাঙ্গা করতে ফেব্রুয়ারি অথবা মার্চে কেন্দ্রীয় নেতারা জেলা সফরে যাওয়ার কথা ভাবছেন।

পাশাপাশি ছাত্রদল, যুবদলসহ অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনগুলো ঢেলে সাজানো হবে। তবে এবার কাউন্সিলে সরাসরি ভোটের মাধ্যমে এসব সংগঠনের নতুন নেতৃত্ব নির্ধারণ করবে বিএনপি।

এছাড়া ভোটে অনিয়মের অভিযোগ এনে নির্বাচনী ট্রাইব্যুনালে প্রার্থীদের মামলার পাশাপাশি আন্দোলন কর্মসূচি নিয়েও মাঠে থাকবে। এরই অংশ হিসেবে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে জনসভা করার চিন্তা করছে দলটি। জানুয়ারির শেষদিকে বা ফেব্রুয়ারির শুরুতে এ জনসভার তারিখ নির্ধারণ হতে পারে।

বিএনপির একাধিক নীতিনির্ধারকদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে এসব তথ্য। দলটির নীতিনির্ধারকদের মতে, বিএনপির সামনে এখন অনেক চ্যালেঞ্জ। বাস্তবতার নিরিখে বিএনপিকে আগামী দিনের পথ চলতে হবে। দল ইতিমধ্যে নির্বাচন ও ফলাফল প্রত্যাখ্যান করেছে। একই সঙ্গে নেতারা নতুন নির্বাচনের দাবিও জানিয়েছেন। এ দাবি নিয়ে জনগণের কাছে যাবেন। ভোটের অনিয়ম তদন্তে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের কাছেও যাবেন তারা।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর যুগান্তরকে বলেন, দেশের জনপ্রিয় বৃহৎ রাজনৈতিক দল বিএনপিকে নিশ্চিহ্ন করতে সরকার নানা কৌশলের আশ্রয় নিচ্ছে। কিন্তু প্রতিষ্ঠার পর অনেক চড়াই-উতরাই পেরিয়ে আবার স্বমহিমায় ঘুরে দাঁড়িয়েছে বিএনপি।

‘তাই সরকার যতই কৌশল গ্রহণ করুক এ দলটিকে ধ্বংস বা নিশ্চিহ্ন করা যাবে না।’ বৈঠক করেই দলের পরবর্তী করণীয় ঠিক করা হবে বলে জানান বিএনপি মহাসচিব।

সূত্রঃ যুগান্তর