দুপুর ২:২৬ শুক্রবার ১৯শে জুলাই, ২০১৯ ইং

বিপিএলে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের দিকে আলাদা নজর থাকবে সবার

নিউজ ডেস্ক | জাগো প্রতিদিন .কম
আপডেট : জানুয়ারি ৩, ২০১৯ , ৬:০৮ পূর্বাহ্ণ
ক্যাটাগরি : খেলাধুলা
পোস্টটি শেয়ার করুন

এবারের বিপিএলে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের দিকে আলাদা নজর থাকবে সবার। শুধু দেশের ক্রিকেট অনুরাগীদেরই নয়, বিদেশিদেরও। কারণটাও প্রায় সবার জানা। এবার এই দলটিকে খেলবেন বিশ্ব ক্রিকেটের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান ও অস্ট্রেলিয়ার সাবেক অধিনায়ক স্টিভেন স্মিথ। এবারই প্রথমবারের মতো এই টুর্নামেন্টে খেলতে রাজি হয়েছেন তিনি।

স্মিথকে নিয়ে অবশ্য নাটক কম হয়নি। বল টেম্পারিং কাণ্ডে নিষিদ্ধ এই ব্যাটসম্যানকে ড্রাফটের বাইরে নিয়েছে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। যে কারণে আপত্তি ছিল বাকি দলগুলোর। তাদের আপত্তির মুখে একবার তো বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) জানিয়েও দিয়েছিল, শেষ পর্যন্ত খেলা হচ্ছে না অস্ট্রেলিয়ার সাবেক অধিনায়কের।

তবে অনেক নাটকীয়তার পর ছাড়পত্র পেয়েছেন স্মিথ। তার মতো একজন ক্রিকেটার বিপিএলে খেললে টুর্নামেন্টের আকর্ষণ এবং গ্রহণযোগ্যতা অনেকটাই বেড়ে যাবে, এই বাস্তবতাটা উপলব্ধি করতে পেরেছেন সবাই। বিসিবি তাই নিয়ম পরিবর্তন করে বাকি দলগুলোকেও ড্রাফটের বাইরে একজন করে খেলোয়াড় নেয়ার অনুমতি দিয়েছে।

তাই স্মিথ আসছেন বিপিএল মাতাতে। তাকে নিয়ে আলাদা আগ্রহ উদ্দীপনা ক্রিকেট ভক্তদের মধ্যে। বিশেষ করে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের সমর্থকরা ভীষণ উচ্ছ্বসিত। উচ্ছ্বসিত দলের কোচ মোহাম্মদ সালাউদ্দিনও। তবে শুধু একজন ক্রিকেটারকে নিয়েই সব পরিকল্পনা সাজানোর পক্ষপাতী নন তিনি। কুমিল্লা কোচের কাছে গুরুত্ব পাচ্ছেন দেশি ক্রিকেটাররাও। জানালেন, দলের সবাইকে নিয়েই রোমাঞ্চিত তিনি।

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স এবারও ভারসাম্যপূর্ণ এক দল গড়েছে। দলটির নেতৃত্বে আছেন জাতীয় দলের অভিজ্ঞ ওপেনার তামিম ইকবাল। আছেন ইমরুল কায়েস, এনামুল বিজয়, আবু হায়দার, মোশারফ রুবেলের মতো পরীক্ষিত দেশি তারকা। বিদেশিদের মধ্যে স্মিথের সঙ্গে শহীদ আফ্রিদি, থিসারা পেরেরা, শোয়েব মালিক, এভিন লুইসরা আছেন-আর কি চাই!

দল নিয়ে সালাউদ্দিন বলেন, ‘আমি বলবো যে আমাদের স্থানীয় ক্রিকেটার যারা রয়েছে তাঁরা অনেক বেশি অভিজ্ঞ। এটি আমাদের সব থেকে বড় সুবিধা। আর যারা আছে তাঁরা সকলেই খেলার মতো এবং আমার মনে হয় তাঁরা পরীক্ষিত। টি-টোয়েন্টি স্পেশালিষ্ট হিসেবে অনেক ক্রিকেটার আছে। বিশেষ করে যারা স্থানীয় আছে। সেই সাথে আমরা অনেক অভিজ্ঞ বিদেশি ক্রিকেটারও পেয়েছি এবং অনেক ভালো ভালো ক্রিকেটার আছে। এখন স্থানীয় ও বিদেশি ক্রিকেটারের সমন্বয়ে আসলে দলটি কেমন হয় তার ওপর আসলে ফলাফল নির্ভর করবে। এটি যত তাড়াতাড়ি করতে পারবো সেটি আমাদের জন্য ভালো হবে।’

স্মিথকে নিয়ে আলাদা করে কথা হচ্ছে, হবেও। কিন্তু সালাউদ্দিন শুধু একজনকেই আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে রাখতে নারাজ। তিনি বলেন, ‘দেখুন, একটি দলের সবাই আসলে গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড়। স্টিভ স্মিথ আসলেই অনেক ভালো খেলোয়াড়। তবে আমার দলের সবাইকেই অনেক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে হবে। স্থানীয় ক্রিকেটার এবার যেহেতু সাত জন খেলবে। সুতরাং তাঁদের ভূমিকাটি অনেক বেশি হবে এবং এটি দলের জয় পরাজয়ের ব্যাপারে অনেক নির্ভর করবে। আমি মনে করি স্থানীয় ক্রিকেটাররা ভালো খেললে বিদেশিদের কাজটি কমে যাবে এবং স্থানীয়দের ভালো করা অনেক বেশি জরুরী।’

স্মিথ যোগ দেয়ায় বিপিএল এবং কুমিল্লা কতটা লাভবান? এমন প্রশ্নের জবাবে সালাউদ্দিন বলেন, ‘আমার কাছে মনে হয় দলের তো লাভ হবেই, সাথে তাঁর নিজেরও লাভ হবে। সে আন্তর্জাতিক লেভেলে আসার জন্য ম্যাচ খেলতে পারবে। এটা তাঁর জন্য যেমন গুরুত্বপূর্ণ তেমন আমাদের জন্যও সে গুরুত্বপূর্ণ ক্রিকেটার। আমাদের দলের জন্য সে ভালো খেললে তা আমাদের জন্যই ভালো হবে। আমি আসলে প্রত্যেকটি ক্রিকেটারকে নিয়েই রোমাঞ্চিত, শুধু একজনকে নিয়ে নয়।’

২০১৫ সালে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। পরের বছর লিগপর্ব থেকেই বাদ পড়ে। আর গতবার (২০১৭) প্লে-অফ থেকে ছিটকে পড়ে সালাউদ্দিনের দল। এবার তাদের লক্ষ্য থাকবে সেই ভুল শুধরে নেয়া।

সালাউদ্দিনও জানালেন এমনটাই, ‘টি-টোয়েন্টিতে আসলে আপনি সবসময় যে জিতবেন, এটি বলা মুশকিল। একটি ম্যাচে দুই ওভারেই পুরো টুর্নামেন্ট শেষ হয়ে যেতে পারে। এখানে প্রতিটি ম্যাচই ভালো খেলা অনেক গুরুত্বপূর্ণ। এই কারণে আমি মনে করি অভিজ্ঞ ক্রিকেটাররা শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত মানিয়ে নিতে পারে, যেটি রংপুর করেছিলো। কারণ তাদের আসলে অনেকগুলো অভিজ্ঞ ক্রিকেটার ছিলো যারা বড় ম্যাচের চাপটি ঠিক মতো নিতে পেরেছে এবং সেখান থেকে ম্যাচ বের করে এনেছে। আমার কাছে মনে হয় আমাদেরও কিছু ভুল ছিলো। আমি মনে করি আমার দুই একটি সিদ্ধান্ত গত দুই ম্যাচে ভালো হয়নি, এটি আমারই দোষ। গত টুর্নামেন্ট থেকে কিছু হয়তো শিখতে পেরেছি, এই বছর চেষ্টা করবো যেন সেই ভুলগুলো যেন না করি।’