রাত ১:৪৯ শুক্রবার ৩রা ডিসেম্বর, ২০২০ ইং

ব্রেকিং নিউজ:

কুমিল্লা দেবিদ্বারে ৫০ টাকার লোভ দেখিয়ে ৭ বছরের শিশুকে ধর্ষণ। | কুমিল্লা সদরে ডিবি পুলিশের অভিযানে অস্ত্র ও ৫ শত পিছ ইয়াবাসহ এক এক যুবক। | সিলেট চেম্বারের পরিচালনা পরিষদের ২০১৯-২০২১ সাল মেয়াদের দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত | কুমিল্লা সদর দক্ষিণে যাত্রীবাহি বাসচাপায় ৩ মোটরসাইকেল আরোহী নিহত। | মাধবপুরে দুই কেজি গাঁজা সহ ২ মাদক পাচারকারী আটক | ছেলের জন্য সকলের কাছে দোয়া চাইলেন ক্রিকেটার রুবেল | পুত্র সন্তানের বাবা হলেন রুবেল, মা-ছেলে দুজনেই সুস্থ আছেন | মাদক চোরাকারবারীদের ফাঁদে পরে, বিলিনের পথে মাধবপুরের চা শিল্প! | কুমিল্লা সদরে ট্রেনে কাটা পড়ে দুই ষ্কুল শিক্ষার্থী নিহত। আহত-৩ | কুমিল্লায় গোয়েন্দা পুলিশের অভিযানে ৫ হাজার পিছ ইয়াবাসহ সাংবাদিক শামীম আটক। |

সংসদে কোরাম সংকটে সাড়ে ৩৭ কোটি টাকার অপচয়

নিউজ ডেস্ক | জাগো প্রতিদিন .কম
আপডেট : May 17, 2018 , 10:38 am
ক্যাটাগরি : জাতীয়
পোস্টটি শেয়ার করুন

দশম জাতীয় সংসদের চতুর্দশ থেকে অষ্টাদশ অধিবেশন কোরাম সংকটের কারণে প্রায় সাড়ে ৩৭ কোটি টাকা অপচয় হয়েছে বলে দাবি করেছে ট্রন্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)।

বৃহস্পতিবার দুপুরে ধানমন্ডিতে টিআইবির মেঘমালা কনফারেন্স রুমে ‘পার্লামেন্টওয়াচ দশম জাতীয় সংসদ চতুর্দশ থেকে অষ্টাদশ অধিবেশন (জানুয়ারি- ডিসেম্বর ২০১৭)’ শীর্ষক গবেষণা প্রতিবেদন এ তথ্য জনানো হয়।

গবেষণা প্রতিবেদনে বলা হয়, চতুর্দশ থেকে অষ্টাদশ অধিবেশন তথা পাঁচটি অধিবেশনে প্রতিটি কার্যদিবসে কোরাম সংকট লক্ষণীয় ছিল। ৭৬টি কার্যদিবসের ১৩ শতাংশ কোরাম সংকট ছিল। প্রতি কার্যদিবসে গড় কোরাম সংকট ছিল ৩০ মিনিট করে অপচয় হয়।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সংসদের বাজেটের ভিত্তিতে সংসদ পরিচালনার ব্যয়ের প্রক্কালিত হিসাব অনুযায়ী সংসদ পরিচালনা করতে প্রতি মিনিটে গড়ে ১ লাখ ৬৩ হাজার ৬৮৬ টাকা খরচ হয়। এ হিসাবে প্রতি কার্যদিবসে গড় কোরাম সংকটের অর্থমূল্য ৪৯ লাখ ১০ হাজার ৫৮০ টাকা এবং চতুর্দশ থেকে অষ্টাদশ পর্যন্ত ৫টি অধিবেশনে মোট কোরাম সংকট ছিল ৩৮ ঘন্টা ৩ মিনিট। যে কারণে সরকারের ৩৭ কোটি ৩৬ লাখ ৯৫ হাজার ১৩৮ কোটি টাকা অপচয় হয়েছে।

গবেষণায় আরো বলা হয়েছে, দশম জাতীয় সংসদের এখন পর্যন্ত মোট ১৫২ ঘন্টা ১৭ মিনিট, যা প্রকৃত সময়ের ১২ শতাংশ। ফলে সরকারের কোরাম সংকটের কারণে ১২৫ কোটি ২০ লাখ ৬৯ হাজার ৪৪৫ টাকা অপচয় হয়েছে।

এ ব্যাপারে টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, জাতীয় সংসদে বরাবরের ন্যায় এবারও কোরাম সংকট অব্যাহত ছিল। এটা অত্যন্ত উদ্বোগের বিষয়।

‘পার্লামেন্টওয়াচ দশম জাতীয় সংসদ চতুর্দশ থেকে অষ্টাদশ অধিবেশন (জানুয়ারি – ডিসেম্বর ২০১৭)’ শীর্ষক গবেষণা প্রতিবেদনটিতে সংসদকে অধিকতর কার্যকর করার জন্য বেশ কিছু সুপারিশ করা হয়েছে। তার মধ্যে রয়েছে, সংসদে অধিকতর শৃঙ্খলা রক্ষাসহ অসংসদীয় ভাষা ব্যবহার বন্ধে বিধি অনুযায়ী স্পিকারকে আরো জোরালো ভূমিকা নিতে হবে, আন্তর্জাতিক চুক্তিসমূহ সদস্যদের আলোচনার জন্য রাষ্ট্রপতির মাধ্যমে সংসদে উত্থাপন করতে হবে, বিধি অনুযায়ী কমিটির নিয়মিত সভা অনুষ্ঠান করতে হবে, সংরক্ষিত আসনসহ সকল নির্বাচিত সদস্যদের হলফনামা নিয়মিত প্রকাশ ও হালনাগাদ করতে হবে, জাতীয় নিরাপত্তার স্বার্থে প্রকাশযোগ্য নয় এমন বিষয় ব্যতীত অন্যান্য আন্তর্জাতিক চুক্তি সংসদের ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা ইত্যাদি।

অনুষ্ঠানে টিআইবির ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান সুলতানা কামালসহ প্রতিষ্ঠানটির অন্যরাও উপস্থিত ছিলেন।