সকাল ১১:৪৫ শুক্রবার ২৭শে নভেম্বর, ২০২০ ইং

ব্রেকিং নিউজ:

কুমিল্লা দেবিদ্বারে ৫০ টাকার লোভ দেখিয়ে ৭ বছরের শিশুকে ধর্ষণ। | কুমিল্লা সদরে ডিবি পুলিশের অভিযানে অস্ত্র ও ৫ শত পিছ ইয়াবাসহ এক এক যুবক। | সিলেট চেম্বারের পরিচালনা পরিষদের ২০১৯-২০২১ সাল মেয়াদের দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত | কুমিল্লা সদর দক্ষিণে যাত্রীবাহি বাসচাপায় ৩ মোটরসাইকেল আরোহী নিহত। | মাধবপুরে দুই কেজি গাঁজা সহ ২ মাদক পাচারকারী আটক | ছেলের জন্য সকলের কাছে দোয়া চাইলেন ক্রিকেটার রুবেল | পুত্র সন্তানের বাবা হলেন রুবেল, মা-ছেলে দুজনেই সুস্থ আছেন | মাদক চোরাকারবারীদের ফাঁদে পরে, বিলিনের পথে মাধবপুরের চা শিল্প! | কুমিল্লা সদরে ট্রেনে কাটা পড়ে দুই ষ্কুল শিক্ষার্থী নিহত। আহত-৩ | কুমিল্লায় গোয়েন্দা পুলিশের অভিযানে ৫ হাজার পিছ ইয়াবাসহ সাংবাদিক শামীম আটক। |

শেষ ওভারে পর পর ৩টি ডট দিয়ে কাপুনি ধরিয়ে দেয়া ফিজকে নিয়ে যা বললেন যাধব

নিউজ ডেস্ক | জাগো প্রতিদিন .কম
আপডেট : April 8, 2018 , 7:00 am
ক্যাটাগরি : খেলাধুলা
পোস্টটি শেয়ার করুন

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগের (আইপিএল) এবারের আসরের প্রথম ম্যাচে নাটকীয় ভাবে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সকে ১ উইকেটের ব্যবধানে হারিয়েছে চেন্নাই সুপার কিংস।  হ্যামস্ট্রিংয়ের চোটে পড়া কেদার যাদভ ২২ বলে ২৪ রানের দারুণ এক ইনিংস খেলে দলকে জিতিয়েছেন।

শেষ ওভারে চেন্নাইয়ের জয়ের জন্য দরকার ছিল ৭ রান।  বোলার ছিলেন টাইগার পেসার মুস্তাফিজুর রহমান।  বল হাতে প্রথম ৩টি বলই ডট দিয়েছিলেন মুস্তাফিজ।  তবে চতুর্থ বলে ৬ ও পঞ্চম বলে ৪ রান দিয়ে ম্যাচ হারিয়ে দেন এই পেসার।

এই

১০ রানই এসেছে কেদার যাদভের ব্যাট থেকে।  পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে কেদার জানিয়েছেন, তিনি জানতেন যে দৌঁড়াতে পারবেন না, তবে যেভাবেই হোক তার রান করার দরকার ছিল।  তাই চিন্তা ছিল বড় শট খেলার।  এই চিন্তাতেই সফল হয়েছেন তিনি।

কেদারের ভাষ্যমতে, “আমি জানতাম আমি দৌঁড়াতে পারবো না এবং আমার রান তুলতে হবে।  আমি তাকে বলেছিলাম (ইমরান তাহির) আমার চেষ্টা করতে হবে এবং রান করতে হবে আমাকে।  ঠিক করেছিলাম এই ছয়টি বল খেলবো এবং উইকেটে থাকবো।  কিন্তু তিন বল পরেই আমি দেখলাম (তাহির) কিছুটা অস্বস্তি অনুভব করছিল।  ”

মুস্তাফিজের বোলিংয়ের ভাষা তিনি পড়তে পেরেছিলেন।  কেদার জানতেন যে বোলার অনেক চাপ নিয়ে বোলিংয়ে আসবে।  তিনি অপেক্ষা করছিলেন খারাপ বলের জন্য।  চতুর্থ ও পঞ্চম বলে সেই সুযোগটাই কাজে লাগিয়েছেন কেদার।

এই প্রসঙ্গে কেদার বলেছেন, “আমি জানতাম যে বোলার অনেক চাপ নিয়ে আসবে।  আমি অপেক্ষা করছিলাম আমার সুযোগের জন্য।  জানতাম যে খারাপ বল আসবে।  আমি দেখতে চাইছিলাম আমার শরীর কিভাবে প্রতিক্রিয়া করে।  গভীর ভাবে আমি খেলাটি কেড়ে নিয়েছি।  এবং সে (মুস্তাফিজ) আরও চাপে পড়েছিল।