বিকাল ৩:৩১ মঙ্গলবার ২৪শে নভেম্বর, ২০২০ ইং

ব্রেকিং নিউজ:

কুমিল্লা দেবিদ্বারে ৫০ টাকার লোভ দেখিয়ে ৭ বছরের শিশুকে ধর্ষণ। | কুমিল্লা সদরে ডিবি পুলিশের অভিযানে অস্ত্র ও ৫ শত পিছ ইয়াবাসহ এক এক যুবক। | সিলেট চেম্বারের পরিচালনা পরিষদের ২০১৯-২০২১ সাল মেয়াদের দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত | কুমিল্লা সদর দক্ষিণে যাত্রীবাহি বাসচাপায় ৩ মোটরসাইকেল আরোহী নিহত। | মাধবপুরে দুই কেজি গাঁজা সহ ২ মাদক পাচারকারী আটক | ছেলের জন্য সকলের কাছে দোয়া চাইলেন ক্রিকেটার রুবেল | পুত্র সন্তানের বাবা হলেন রুবেল, মা-ছেলে দুজনেই সুস্থ আছেন | মাদক চোরাকারবারীদের ফাঁদে পরে, বিলিনের পথে মাধবপুরের চা শিল্প! | কুমিল্লা সদরে ট্রেনে কাটা পড়ে দুই ষ্কুল শিক্ষার্থী নিহত। আহত-৩ | কুমিল্লায় গোয়েন্দা পুলিশের অভিযানে ৫ হাজার পিছ ইয়াবাসহ সাংবাদিক শামীম আটক। |

প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণার পর প্রজ্ঞাপন কবে, তা বিষয়ই না: কাদের

নিউজ ডেস্ক | জাগো প্রতিদিন .কম
আপডেট : May 14, 2018 , 5:17 pm
ক্যাটাগরি : নির্বাচিত,রাজনীতি
পোস্টটি শেয়ার করুন

সরকারি চাকরিতে কোটা নিয়ে প্রধানমন্ত্রী ঘোষণা অনুযায়ী প্রজ্ঞাপনের দাবিতে সড়ক অবরোধ করে জনভোগান্তি তৈরি করায় এ নিয়ে আন্দোলনকারী ছাত্রদের সমালোচনা করেছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী সংসদে যে ঘোষণা দিয়েছেন, এরপর প্রজ্ঞাপন কখন হয়, সেটা আর গুরুত্ব বহন করে না। এ নিয়ে ধৈর্য ধরতে হবে।

সোমবার ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ সব কথা বলেন কাদের।

সরকারি চাকরিতে কোটা ৫৬ শতাংশ থেকে কমিয়ে ১০ শতাংশে নিয়ে আসার দাবিতে গত ৮ এপ্রিল থেকে তুমুল আন্দোলনের মুখে ১১ এপ্রিল সংসদে ‘কোনো কোটা থাকার দরকার নেই’ বলে বক্তব্য দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সৌদি আরব, যুক্তরাজ্য এবং অস্ট্রেলিয়া সফর শেষে গত ২ মে গণভবনে করা সংবাদ সম্মেলনে এক প্রশ্নে আবারও কোটা বাতিলের বিষয়ে তার আগের ঘোষণার কথাই জানান। কোটা বাতিলের ঘোষণার পুনর্বিবেচনার সুযোগ আছে কি না, জানতে চাইলে তিন বলেন, তিনি ১১ এপ্রিল যেটা বলেছেন, সেটা থেকে পিছিয়ে আসার সুযোগ নেই।

তবে প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা অনুযায়ী প্রজ্ঞাপনের দাবিতে দুই দিন ধরে আবারও কর্মসূচি শুরু হয়েছে ‘বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ’ এর ব্যানারে।

গত ৮ ফেব্রুয়ারির মতোই আজ সোমবার দিনভর রাজধানীর শাহবাগ মোড় অবরোধ করে যান চলাচল বন্ধ করে দেয় আন্দোলনকারী ছাত্ররা। কর্মদিবসে তাদের এই অবস্থানের কারণে গোটা রাজধানীতে চরম ভোগান্তি তৈরি হয়। লাখ লাখ মানুষ রাস্তায় আটকা পড়ে কষ্ট পায়।

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘দেশের প্রধানমন্ত্রী সংসদে দাড়িয়ে এই কোটা বাতিল করেছে। প্রজ্ঞাপন কবে হবে সেটা ম্যাটার করে না।’

প্রজ্ঞাপনে বিলম্বের কারণ আগের দিনই সচিবালয়ে জানিয়েছিলেন কাদের। তিনি জানান, যাদের কোটা বাতিল হচ্ছে তাদের জন্য বিকল্প কী করা যায়, তা অনুসন্ধান করতে গিয়েই দেরি হচ্ছে। সেই কথাও আজও তুলে ধরেন তিনি। বলেন, ‘এখানে ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী, প্রতিবন্ধী, জেলা, নারী, মুক্তিযোদ্ধাসহ বিভিন্ন ধরনের কোটা রয়েছে। এইগুলো একটা ব্যালেন্স করা প্রয়োজন। সে কাজটা চলছে।’

‘সেই জন্যে মন্ত্রিপরিষদ সচিবের নেতৃত্বে একটি কমিটি করা হয়েছে, তারা কাজগুলো গুছিয়ে এনেছে। এটাকে ঢেলে সাজানো চ্যালেঞ্জিং বিষয়। সে জন্য একটু সময় লাগবে। এর জন্য ধৈর্য ধরতে হবে। ধৈর্য সীমার বাইরে যাবে এটা আমরা আশা করি না। দেশের প্রধানমন্ত্রীর উপর তাদের আস্থা রাখতে হবে। আমি এখনও তাদের যৌক্তিক আন্দোলনের যৌক্তিক সমাধানের শেষ পর্যায়ে এসে রয়েছে।’

গত ৮ থেকে ১১ এপ্রিল আন্দোলনের সময় সরকারিবিরোধী রাজনৈতিক শক্তিগুলোও ঢুকে পড়েছিল বলে সরকারের কাছে তথ্য ছিল। তখনও এ বিষয়ে আন্দোলনকারীদের সতর্ক করেছিলেন কাদের। সেই কথাটি আজও বলেন তিনি।

‘কোনো অপরাজনীতি অনুপ্রবেশ না হয়, সে দিকে খেয়াল রাখতে হবে। কোটা হচ্ছে সাধারণ ছাত্র-ছাত্রীদের মান-এটা নিয়ে কেউ যেন রাজনীতির অশুভ খেলায় মেতে উঠতে না পারে সে ব্যাপারে সত্যিকারের আন্দোলনকারীদের বিষয়টি যৌক্তিকভাবে বিবেচনা করতে হবে।’

সড়ক অবরোধের সমালোচনা করে আওয়ামী লীগ নেতা বলেন, ‘আজকে সারা ঢাকা শহর স্তব্ধ হয়ে গেছে। তাদের পরিবারের সদস্যরা, এর মধ্যে মুমূর্ষ রোগীরাও আছে। ঢাকা শহরের লক্ষ লক্ষ মানুষকে রাস্তা বন্ধ করে কষ্ট দেওয়ার অধিকার আমাদের কারও নেই। তাদের দাবির বিষয়টি প্রধানমন্ত্রী যৌক্তিকভাবে সক্রিয় বিবেচনা করছেন। আন্দোলনকারীদেরকে জনগণকে কষ্ট দেওয়া থেকে বিরত থাকার আহ্বান জানাই।’

এই ধৈর্য সব পক্ষকেই ধারণ করতে হবে বলে জানান কাদের। বলেন, ‘আমার অনেক কথাই আছে, পরে বলব। এই মুহূর্তে আমারও ধৈর্যসীমা অতিক্রম করা চলবে না। ধৈর্যসীমা অতিক্রম করলে তো সমাধান হবে না। আমি ওদেরকে হুট করে একটা কথা বলে দিলে সমাধান হবে না। এতে আরও সমস্যা বাড়বে।’

আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, দপ্তর সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ, সাংস্কৃতিক সম্পাদক অসীম কুমার উকিল, উপ দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া, নির্বাহী সদস্য রিয়াজুল কবির কাওসার প্রমুখ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।