ভোর ৫:০৮ রবিবার ২৮শে নভেম্বর, ২০২০ ইং

ব্রেকিং নিউজ:

কুমিল্লা দেবিদ্বারে ৫০ টাকার লোভ দেখিয়ে ৭ বছরের শিশুকে ধর্ষণ। | কুমিল্লা সদরে ডিবি পুলিশের অভিযানে অস্ত্র ও ৫ শত পিছ ইয়াবাসহ এক এক যুবক। | সিলেট চেম্বারের পরিচালনা পরিষদের ২০১৯-২০২১ সাল মেয়াদের দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত | কুমিল্লা সদর দক্ষিণে যাত্রীবাহি বাসচাপায় ৩ মোটরসাইকেল আরোহী নিহত। | মাধবপুরে দুই কেজি গাঁজা সহ ২ মাদক পাচারকারী আটক | ছেলের জন্য সকলের কাছে দোয়া চাইলেন ক্রিকেটার রুবেল | পুত্র সন্তানের বাবা হলেন রুবেল, মা-ছেলে দুজনেই সুস্থ আছেন | মাদক চোরাকারবারীদের ফাঁদে পরে, বিলিনের পথে মাধবপুরের চা শিল্প! | কুমিল্লা সদরে ট্রেনে কাটা পড়ে দুই ষ্কুল শিক্ষার্থী নিহত। আহত-৩ | কুমিল্লায় গোয়েন্দা পুলিশের অভিযানে ৫ হাজার পিছ ইয়াবাসহ সাংবাদিক শামীম আটক। |

প্লাস্টারের জন্য বিশেষায়িত সিমেন্ট আনছে লাফার্জ হোলসিম

নিউজ ডেস্ক | জাগো প্রতিদিন .কম
আপডেট : May 8, 2018 , 4:42 pm
ক্যাটাগরি : অর্থনীতি,নির্বাচিত
পোস্টটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশের বাজারে প্লাস্টারের জন্য বিশেষায়িত সিমেন্ট আনতে যাচ্ছে লাফার্জ হোলসিম বাংলাদেশ লিমিটেড। ‘প্লাস্টারক্রিট’ ব্র্যান্ডের এই বিশেষায়িত সিমেন্ট আপাতত করপোরেট ক্লায়েন্টরা ক্রয় করতে পারবেন।

সোমবার রাজধানীর একটি হোটেলে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য দেন কোম্পানিটির প্রধান নির্বাহী রাজেশ সুরানা।

সংবাদ সম্মেলনে প্রতিষ্ঠানটির প্রধান নির্বাহী রাজেশ সুরানা বলেন, প্লাস্টারক্রিটের মাধ্যমে প্লাস্টার অনেক বেশি মসৃণ যা এই কাজটাকে অনেক বেশি সহজ করবে। এই পণ্যের ব্যবহারে স্থায়িত্ব বৃদ্ধি পাবে এবং ক্র্যাক কম হবে ফলে মেরামতের প্রয়োজন পড়বে না।

তিনি বলেন, নতুন এই সিমেন্ট গ্রাহকদের সময় বাঁচাবে, খরচ কমাবে এবং আমরা আশা করছি দেশের নির্মাণ খাতে বড় ধরনের প্রভাব ফেলবে। প্লাস্টারক্রিট ছাড়াও বাজারে কোম্পানিটির হোলসিম স্ট্রং স্ট্রাকচার, সুপারক্রিট, হোলসিম গ্রে ও হোলসিম রেড নামে চার ধরনের সিমেন্ট রয়েছে।

তিনি আরও বলেন, “নির্মাণ খাতে সেরা সল্যুশন আনতে কোম্পানিটি প্রতিনিয়ত গবেষণা এবং পণ্য উন্নয়নের কাজ করে চলেছে। এরই ধারাবাহিকতায় বাজরে প্লাস্টারক্রিটের মতো সিমেন্ট আনতে যাচ্ছে কোম্পানিটি।

লাফার্জ হোলসিম বাংলাদেশ বছরে ৪.২ মিলিয়ন টন বিশ্বমানের সিমেন্ট উৎপাদন করছে। কোম্পানিটি বাংলাদেশে ৫০০ মিলিয়ন ইউএস ডলার বিনিয়োগ করেছে এবং আরও বিনিয়োগের পরিকল্পনা করছে। দেশের নির্মাণ খাতে এটাই সবচেয়ে বৃহৎ বিদেশি বিনিয়োগ।

কোম্পানিটির সুনামগঞ্জের ছাতকে অবস্থিত প্ল্যান্টটি দেশের একমাত্র স্বয়ংসম্পূর্ণ সিমেন্ট প্ল্যান্ট। ক্লিংকার উৎপাদনের মাধ্যমে প্রতি বছর কোম্পানিটি ৪০ থেকে ৫০ মিলিয়ন ইউএস ডলার বৈদেশিক মুদ্রার সাশ্রয় করে।

কোম্পাটির প্ল্যান্টগুলো দেশের উত্তর-পশ্চিম, মধ্যাঞ্চল এবং দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে অবস্থিত হওয়ার কারণে গ্রাহকদেরও সুবিধা হয়েছে। এই প্রকল্পগুলোর সাথে সরাসরি জড়িত রয়েছে প্রায় ৩ হাজার কর্মী।

এছাড়া বিশ হাজারের মতো সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান রয়েছে কোম্পানিটির। এর শতকরা ৪১ ভাগ শেয়ারের মালিক বাংলাদেশের প্রায় ৩০ হাজার সাধারণ বিনিয়োগকারী এবং বাকি শেয়ারের মালিকানা রয়েছে সুইজারল্যান্ড এবং ফ্রান্সের লাফার্জ হোলসিম গ্রুপ এবং স্পেনের সিমেন্টোস মলিন্সের হাতে।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন লাফার্জ হোলসিম বাংলাদেশের মার্কেটিং অ্যান্ড কমার্শিয়াল ট্রান্সফরমেশন ডিরেক্টর আরিফ ভূইঞা এবং হেড অব মার্কেটিং স্ট্র্যাটেজি, ব্র্যান্ডস অ্যান্ড কমিউনিকেশন সৈয়দ নাঈমুল আবেদীন।