বিকাল ৫:০৬ শুক্রবার ৪ঠা ডিসেম্বর, ২০২০ ইং

ব্রেকিং নিউজ:

কুমিল্লা দেবিদ্বারে ৫০ টাকার লোভ দেখিয়ে ৭ বছরের শিশুকে ধর্ষণ। | কুমিল্লা সদরে ডিবি পুলিশের অভিযানে অস্ত্র ও ৫ শত পিছ ইয়াবাসহ এক এক যুবক। | সিলেট চেম্বারের পরিচালনা পরিষদের ২০১৯-২০২১ সাল মেয়াদের দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত | কুমিল্লা সদর দক্ষিণে যাত্রীবাহি বাসচাপায় ৩ মোটরসাইকেল আরোহী নিহত। | মাধবপুরে দুই কেজি গাঁজা সহ ২ মাদক পাচারকারী আটক | ছেলের জন্য সকলের কাছে দোয়া চাইলেন ক্রিকেটার রুবেল | পুত্র সন্তানের বাবা হলেন রুবেল, মা-ছেলে দুজনেই সুস্থ আছেন | মাদক চোরাকারবারীদের ফাঁদে পরে, বিলিনের পথে মাধবপুরের চা শিল্প! | কুমিল্লা সদরে ট্রেনে কাটা পড়ে দুই ষ্কুল শিক্ষার্থী নিহত। আহত-৩ | কুমিল্লায় গোয়েন্দা পুলিশের অভিযানে ৫ হাজার পিছ ইয়াবাসহ সাংবাদিক শামীম আটক। |

বাবুবাজারে ভেজাল ওষুধ বিক্রির দায়ে ৪ ব্যবসায়ীকে দণ্ড

নিউজ ডেস্ক | জাগো প্রতিদিন .কম
আপডেট : May 8, 2018 , 10:19 am
ক্যাটাগরি : অপরাধ ও দুর্নীতি,নির্বাচিত
পোস্টটি শেয়ার করুন

নকল ও ভেজাল ওষুধ বিক্রির অপরাধে রাজধানীর বাবুবাজারে পাঁচজনকে দুই বছর করে কারাদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। একই সঙ্গে তাদের আট লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

কারাদণ্ডাদেশ প্রাপ্তরা হলেন- সুমিত দাস (৩০), দিপু বর্মন (২৫), মো. খায়রুল ইসলাম রবিন (৩০), আবিদ হোসেন (২২) ও আবদুস সাত্তার (৩৬)।

মঙ্গলবার দুপুরে র‍্যাব সদর দফতরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. সারোয়ার আলম পরিবর্তন ডটকমকে এসব তথ্য জানান।

তিনি বলেন, নকল ও ভেজাল ওষুধ বিক্রির অপরাধে ওই পাঁচজনকে কারাদণ্ড ও জরিমানা করা হয়।

তাদের কাছ থেকে নকল ভ্যাকসিন, নকল বিদেশি ওষুধ, বিক্রয় নিষিদ্ধ সরকারি ওষুধসহ প্রায় ১৫ কোটি টাকার নকল ও ভেজাল ওষুধ জব্দ করা হয় বলেও জানান সারোয়ার আলম।

এর আগে সোমবার বিকাল থেকে মঙ্গলবার ভোর রাত ৪টা পর্যন্ত বাবুবাজার ও মিটফোর্ডে পাইকারি ওষুধের দোকানগুলোতে অভিযান চালায় ভ্রাম্যমাণ আদালত। র‍্যাব-৩ ও ওষুধ প্রশাসন অধিদফতরের সহযোগিতায় এই অভিযান পরিচালিত হয়।

অভিযানের পর থেকে মঙ্গলবার দুপুরে এই প্রতিবেদন লেখার সময় পর্যন্ত পুরান ঢাকার মিটফোর্ড-বাবুবাজারের সব ওষুধ মার্কেট বন্ধ দেখা গেছে। অভিযানের আতঙ্কে সেখানকার কোনো ওষুধের দোকান খুলতে দেখা যায়নি

অভিযানে আরো অংশ নেন র‍্যাব-৩ এর উপঅধিনায়ক মেজর রাহাত, কোম্পানি কমান্ডার মেজর মারুফ, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ফয়জুলসহ ৬ জন অফিসার, বিভিন্ন পর্যায়ের ৮০ জন র‍্যাব সদস্য এবং ওষুধ প্রশাসন অধিদফতরের ৬ জন বিশেষজ্ঞ অফিসার।