সকাল ৯:১৭ বুধবার ২০শে জানুয়ারি, ২০২১ ইং

ব্রেকিং নিউজ:

কুমিল্লা দেবিদ্বারে ৫০ টাকার লোভ দেখিয়ে ৭ বছরের শিশুকে ধর্ষণ। | কুমিল্লা সদরে ডিবি পুলিশের অভিযানে অস্ত্র ও ৫ শত পিছ ইয়াবাসহ এক এক যুবক। | সিলেট চেম্বারের পরিচালনা পরিষদের ২০১৯-২০২১ সাল মেয়াদের দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত | কুমিল্লা সদর দক্ষিণে যাত্রীবাহি বাসচাপায় ৩ মোটরসাইকেল আরোহী নিহত। | মাধবপুরে দুই কেজি গাঁজা সহ ২ মাদক পাচারকারী আটক | ছেলের জন্য সকলের কাছে দোয়া চাইলেন ক্রিকেটার রুবেল | পুত্র সন্তানের বাবা হলেন রুবেল, মা-ছেলে দুজনেই সুস্থ আছেন | মাদক চোরাকারবারীদের ফাঁদে পরে, বিলিনের পথে মাধবপুরের চা শিল্প! | কুমিল্লা সদরে ট্রেনে কাটা পড়ে দুই ষ্কুল শিক্ষার্থী নিহত। আহত-৩ | কুমিল্লায় গোয়েন্দা পুলিশের অভিযানে ৫ হাজার পিছ ইয়াবাসহ সাংবাদিক শামীম আটক। |

মায়ের জন্য ভালোবাসা

নিউজ ডেস্ক | জাগো প্রতিদিন .কম
আপডেট : August 28, 2018 , 5:13 am
ক্যাটাগরি : বিনোদন
পোস্টটি শেয়ার করুন

মা, পৃথিবীতে যার কোনো তুলনা হয় না। আমার কাছে মা পৃথিবীতে সবচেয়ে দামি। নিজে মা হওয়ার পর তা টের পেয়েছি। আমার ছেলে স্বাধীন ও মেয়ে ফাইজা আমাকে না দেখলে যেমন ব্যাকুল হয়ে ওঠে, ঠিক তেমনি ছোটবেলায় আমিও মাকে না দেখলে পাগল হয়ে যেতাম। কারণে-অকারণে মাকে জড়িয়ে ধরতাম। তারকা হওয়ার পর, মায়ের স্নেহভরা মমতার স্পর্শ অনেক বেশি মিস করি। মায়ের সঙ্গে সন্তান হিসেবে ছোটবেলায় যা যা করেছি, এখন আমার সন্তানরাও সেগুলো করে। ওদের ভালোবাসা দেখে প্রায়ই নিজের ছোটবেলায় হারিয়ে যাই।
পূর্ণিমা
প্রত্যেকের কাছেই তার মা পৃথিবীর সেরা। প্রত্যেক সন্তানের কাছেই মাকে নিয়ে তার এমনই অনুভূতি। আমার বাবা ১৯৯৩ সালে ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে মারা যান। সেই থেকে মা আমদের সংসারের হাল ধরেছেন। কঠিন সংগ্রামের মধ্য দিয়ে আমাদের মানুষ করেছেন। মা আমাকে কখনোই বাবার অভাব অনুভব করতে দেননি। মাই আমার বাবা-মা। তাই রাজ্যের যত আবদার সবই ছিল তার কাছে। মাও চেষ্টা করতেন সব পূরণের। আজকের আমি যে ‘আমি’তে পরিণত হয়েছি তা শুধু মায়েরই কারণে। সমকালের মতো পাঠকপ্রিয় জাতীয় দৈনিকে আজ মাকে নিয়ে লিখতে পারছি একমাত্র মায়েরই কারণে। কারণ তিনি আমাকে দর্শকের প্রিয় পূর্ণিমায় পরিণত করতে অনেক কষ্ট করেছেন। আমার নিজের যত কষ্ট হোক, চেষ্টা করি আমার কোনো কাজ বা কথার কারণে মা যেন কষ্ট না পান। আমার মনে পড়ে না, মা কখনও কোনো কারণে বকা দিয়েছেন কি-না। মায়ের ভালোবাসার মাঝেই আমি বেঁচে থাকতে চাই। আমি তোমায় অনেক অনেক ভালোবাসি মা। তোমার ঋণ শোধ করা যাবে না।
ফেরদৌস
মায়ের একধার দুধের দাম/ কাটিয়া গায়ের চাম/ পাপোশ বানাইলে ঋণের শোধ হবে না’। যদি প্রশ্ন করা হয় কোন শব্দের সবচেয়ে বেশি আকুলতা, বেশি আবেগ, নিবিড় টান আছে, বিতর্ক ছাড়াই একটি উত্তরই আসবে, ‘মা’। মায়ের সঙ্গে সন্তানের গভীরতম সম্পর্কের কাছে সব সম্পর্কই যেন গৌণ। যে সম্পর্কের সঙ্গে আর কোনো তুলনা হয় না। মা আমার কাছে একটি আশ্রয়ের নাম। একটি শান্তির নাম। ‘মা’-একটি শব্দই মনে করিয়ে দেয় অকৃত্রিম স্নেহ, মমতা আর গভীর ভালোবাসার কথা। মায়ের ঋণ শোধ করার ক্ষমতা এই পৃথিবীতে কার নেই। প্রত্যেক মানুষের মতো আমারও মা আমার কাছে পৃথিবীর সেরা মা। মা ছিল বলেই আমি আজকের ফেরদৌস হয়ে উঠতে পেরেছি।
শাকিব খান
আমি মা দিবসটিকে আলাদা করে দেখি না। শুধু এই দিনে মাকে বেশি ভালোবাসব বা তার খেয়াল অন্যদিনের চেয়ে বেশি রাখব, তা নয়। মাকে ভালোবাসা ও তার প্রতি যত্ন নেওয়া একজন সন্তানের কর্তব্য। বিশেষ কোনো দিনে নয়, সন্তানের প্রতিদিনের দায়িত্ব এটি। আমি আমার মাকে অনেক বেশি ভালোবাসি। শুধু মুখে বলেই নয়, তার প্রমাণ দিতে চাই প্রতিটি কাজে। আমার মা পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ মা – আমি মনেপ্রাণে তা বিশ্বাস করি। মা আমার পাশে থাকে সর্বক্ষণ। তার দোয়াতেই আমি প্রতিটি কাজে সফল হয়েছি। সত্যি মা, তোমাকে পেয়ে আমি ধন্য। ।
জয়া আহসান
পৃথিবীতে একজন মানুষ আছেন যাকে নিয়ে যত কথা হোক, লেখা হোক তবুও কমতি থেকে যায়। তিনি মা। ‘মা’ তুমি তো শালিক পাখি, সকাল দুপুর সন্ধ্যা রাত্রি ঘুরে বেড়াও আমার বুকের ভিতর। মা আমার জীবন ধ্বনি তোমার কণ্ঠ হতে নির্গত হয় কেউ জানে না। কেউ বোঝে না। শুধু আমি জানি আর জানে নীল আকাশের ওই তারারা।’ আমার কাছে মা মানে অনেক কিছু। আমার সব কিছুতেই মা আমার সঙ্গে ছিলেন সবসময়। এখনও মা আমার সঙ্গেই থাকেন।
নুসরাত ফারিয়া
‘মা’। অনেক বিশাল এক শব্দ। বিশাল তার পরিধি! আর মা শুধুমাত্র মমতার নয়। ক্ষমতারও যেন সর্বোচ্চ আধার। মা তার মমতার সহজাত মমত্ব দিয়ে সন্তানদেরকে আগলে রাখেন অসামান্য দরদে। আমি আমার মাকে নিয়ে এত এত কথা বলতে পারব, যা বলে শেষ করা যাবে না। মাই যেন আমার সবচেয়ে কাছের বন্ধু। আমার এমন কোনো কথা নেই যা আমি মায়ের কাছে শেয়ার করি না। জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের মা কবিতার মতো বলতে চাই যেখানেতে দেখি যাহা, মা-এর মতন আহা, একটি কথায় এত সুধা মেশা নাই, মায়ের মতন এত, আদর সোহাগ সে তো, আর কোনখানে কেহ পাইবে ভাই!’