সকাল ৯:৪৬ বুধবার ২৭শে জানুয়ারি, ২০২১ ইং

ব্রেকিং নিউজ:

কুমিল্লা দেবিদ্বারে ৫০ টাকার লোভ দেখিয়ে ৭ বছরের শিশুকে ধর্ষণ। | কুমিল্লা সদরে ডিবি পুলিশের অভিযানে অস্ত্র ও ৫ শত পিছ ইয়াবাসহ এক এক যুবক। | সিলেট চেম্বারের পরিচালনা পরিষদের ২০১৯-২০২১ সাল মেয়াদের দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত | কুমিল্লা সদর দক্ষিণে যাত্রীবাহি বাসচাপায় ৩ মোটরসাইকেল আরোহী নিহত। | মাধবপুরে দুই কেজি গাঁজা সহ ২ মাদক পাচারকারী আটক | ছেলের জন্য সকলের কাছে দোয়া চাইলেন ক্রিকেটার রুবেল | পুত্র সন্তানের বাবা হলেন রুবেল, মা-ছেলে দুজনেই সুস্থ আছেন | মাদক চোরাকারবারীদের ফাঁদে পরে, বিলিনের পথে মাধবপুরের চা শিল্প! | কুমিল্লা সদরে ট্রেনে কাটা পড়ে দুই ষ্কুল শিক্ষার্থী নিহত। আহত-৩ | কুমিল্লায় গোয়েন্দা পুলিশের অভিযানে ৫ হাজার পিছ ইয়াবাসহ সাংবাদিক শামীম আটক। |

‘মনে রেখো’ সিনেমার বাজেট ৩ কোটি!

নিউজ ডেস্ক | জাগো প্রতিদিন .কম
আপডেট : August 21, 2018 , 3:39 am
ক্যাটাগরি : বিনোদন
পোস্টটি শেয়ার করুন

‘মনে রেখো’ যৌথ প্রযোজনায় নির্মাণ করতে চেয়েছিলাম। দু’দেশ থেকে শিল্পীদের নির্বাচন করি সেভাবেই। ছবির পরিচালকের কথা মত (ওয়াজেদ আলী সুমন) আগাই। কিন্তু শুটিং শুরুর ঠিক আগে বুঝতে পারি, যেসব শর্ত ও নিয়মকানুন আছে তাতে যৌথ প্রযোজনায় ছবি নির্মাণ কষ্টসাধ্য।

‘সেজন্য যৌথ প্রযোজনা বাদ দেই। এরপর এককভাবে মনে রেখো-তে বিনিয়োগ করি। এজন্য ছবির বাজেট তুলনামুলক বেশি। এই ছবির বাজেট প্রায় ৩ কোটি ২০ লাখ টাকা। বনি আর মাহি দুজনই স্টার। তারা তাদের প্রাপ্য পারিশ্রমিক নিয়েছে।’ বলেছেন, দেশের শীর্ষস্থানীয় প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান হার্টবিট প্রডাকশন হাউজের কর্ণধার ও ছবির প্রযোজক তাপসী ফারুক।

চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহি ও কলকাতার নায়ক বনি সেনগুপ্ত অভিনীত ‘মনে রেখো’ ছবিটি ঈদুল আজহা উপলক্ষে দু’দিন পর মুক্তি পেতে যাচ্ছে। এ ছবির মাধ্যমে প্রথমবার মাহি-বনি জুটি বেঁধেছেন।

এই প্রযোজক বলেন: এছাড়া বাংলাদেশ ও কলকাতার আরও শিল্পী আছেন, যাদের শিডিউল নিতে হয়েছে চড়া মূল্যে। নেপালের এক্সক্লুসিভ লোকেশনে ৪টি গানের শুটিং হয়েছে। সেখানে ৭০ জন বিদেশি ব্যাকআপ ড্যান্সার ছিল। গানগুলোর কোরিওগ্রাফি করেছেন বলিউডের আদিল শেখ। চার গানে তার চাহিদামতো পারিশ্রমিক দিয়েছি। এছাড়া মাহি, বনি, জয়ীর পোশাক ডিজাইনার অভিষেককে দিতে হয়েছে অনেক।

তাপসী ফারুক বলেন: চারটি গান তৈরি ও রেকর্ডিং খরচ হয়েছে। শিল্পীদের যাতায়াত, বনির হোটেল ভাড়া সবকিছুতে টাকা ঢেলেছি। এর বাইরে অত্যাধুনিক ক্যামেরা, শুটিং, প্রডাকশন, ভিএফএক্স, সম্পাদনা, গ্রাফিক্স, কালার, চিত্রনাট্য, নির্মাতার পারিশ্রমিকসহ আরও অনেক খরচ হয়েছে।

সেগুলো সঙ্গত কারণে বলতে চাইলেন না নায়ক শাকিব খান অভিনীত ফুল অ্যান্ড ফাইনাল, লাভ ম্যারেজ, মনের জ্বালা, মনে প্রাণে আছো তুমি, আমার প্রাণের প্রিয়ার মতো সুপারডুপার হিট ছবির এই প্রযোজক।

তাপসী ফারুক বলেন: হার্টবিট সবসময় বিগ বাজেটে ছবি নির্মাণ করে। ভালো কাজ উপহার দেয়ার জন্য হার্টবিটের বিশ্বাসযোগ্যতা রয়েছে। ভালো ছবি বানাতে হার্টবিট কখনও কার্পণ্য করে না। সেজন্য আমার সব ছবির বাজেট বেশি থাকে। আর যৌথ প্রযোজনায় না করে এককভাবে প্রযোজনা করায় বাজেট বেশি লেগেছে।

তিনি বলেন: ‘মনে রেখো’ একেবারে এই সময়কার স্টাইলিশ গল্পের ছবি। শুটিং লোকেশন, কস্টিউম, গান, গল্প সবকিছুতেই আধুনিকতার ছোঁয়া। হার্টবিট ছবি বানায় ‘আউট অব প্যাশন’। তাই দর্শকদের কাছে পৌঁছে দেয়ার আগে শতভাগ সিওর থাকি যেন ছবিটা যেন মনের মতো হয়। মনে রেখো দেখলে দর্শক বুঝতে পারবে এর বাজেট আসলে কেমন।

‘মনে রেখো’ পরিচালনা করেছেন ওয়াজেদ আলী সুমন। মাহি-বনি ছাড়াও এতে অভিনয় করেছেন মিশা সওদাগর, জয়ী, তুলিকা, বিশ্বজিৎ। রোববার ছবিটি সেন্সর বোর্ড থেকে আনকাট মুক্তির অনুমতি পেয়েছে।

ছবির প্রযোজক তাপসী ফারুক জানান: মুক্তির জন্য হল বুকিং চলছে। নায়িকাদের মধ্যে মাহির ছবির আলাদা দর্শক আছে, বনিও বেশ পরিচিত এদেশে। হার্টবিটের ছবির মান ভালো। হল মালিকদের আগ্রহ রয়েছে ‘মনে রেখো’ নিয়ে।