রাত ১২:২৪ বুধবার ১লা ডিসেম্বর, ২০২০ ইং

ব্রেকিং নিউজ:

কুমিল্লা দেবিদ্বারে ৫০ টাকার লোভ দেখিয়ে ৭ বছরের শিশুকে ধর্ষণ। | কুমিল্লা সদরে ডিবি পুলিশের অভিযানে অস্ত্র ও ৫ শত পিছ ইয়াবাসহ এক এক যুবক। | সিলেট চেম্বারের পরিচালনা পরিষদের ২০১৯-২০২১ সাল মেয়াদের দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত | কুমিল্লা সদর দক্ষিণে যাত্রীবাহি বাসচাপায় ৩ মোটরসাইকেল আরোহী নিহত। | মাধবপুরে দুই কেজি গাঁজা সহ ২ মাদক পাচারকারী আটক | ছেলের জন্য সকলের কাছে দোয়া চাইলেন ক্রিকেটার রুবেল | পুত্র সন্তানের বাবা হলেন রুবেল, মা-ছেলে দুজনেই সুস্থ আছেন | মাদক চোরাকারবারীদের ফাঁদে পরে, বিলিনের পথে মাধবপুরের চা শিল্প! | কুমিল্লা সদরে ট্রেনে কাটা পড়ে দুই ষ্কুল শিক্ষার্থী নিহত। আহত-৩ | কুমিল্লায় গোয়েন্দা পুলিশের অভিযানে ৫ হাজার পিছ ইয়াবাসহ সাংবাদিক শামীম আটক। |

মহেশখালিতে হচ্ছে ১৩২০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎকেন্দ্র

নিউজ ডেস্ক | জাগো প্রতিদিন .কম
আপডেট : May 6, 2018 , 10:52 am
ক্যাটাগরি : মুক্তমত
পোস্টটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ ও চীনের যৌথ উদ্যোগে কক্সবাজার জেলার মহেশখালীতে নির্মাণ করা হবে ১ হাজার ৩২০ মেগাওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন কয়লা বিদ্যুৎকেন্দ্র। রোববার (৬ মে) দুপুরে বিদ্যুৎ ভবনে পিডিবি ও চীনের হুয়াদিয়ান কোম্পানির মধ্যে কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ চুক্তি সই হয়।

চুক্তিপত্রে সই করেন, হুয়াদিয়ান কোম্পানির ভাইস প্রেসিডেন্ট ওয়াং জিহাও এবং বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের সচিব মীনা মাসুদ উদ জামান। এ সময় বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ, বাংলাদেশে নিযুক্ত চীনের রাষ্ট্রদূত জাং জোও, বিদ্যুৎ সচিব ড. আহমেদ কায়কাউস এবং বোর্ডের প্রকৌশলী খালেদ মাহমুদ উপস্থিত ছিলেন।

চুক্তি অনুযায়ী, ৪৮ মাসের মধ্যে নির্মাণ কাজ শুরু হবে। বিদ্যুৎকেন্দ্রটি নির্মাণে ব্যয় হবে ২ বিলিয়ন মর্কিন ডলার। যার অর্ধেক দেবে বাংলাদেশ, আর অর্ধেক দেবে চীন। পরবর্তীতে লভ্যাংশের সমান অংশ নেবে দুই দেশে।

চুক্তি সই শেষে প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেন, আগামী তিন থেকে চার বছরের মধ্যে এই বিদ্যুৎ জাতীয় গ্রিডে যুক্ত হবে। প্রাথমিকভাবে ১ হাজার ৩২০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনের চুক্তি হলেও পর্যায়ক্রমে এই বিদ্যুৎকেন্দ্র থেকে ১০ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন করা সম্ভব হবে। এই সময়ের মধ্যে আমাদের প্রকৌশলীরা অভিজ্ঞতা অর্জনের সুযোগ পাবেন।

তিনি বলেন, হুয়াদিয়া চীনের একটি বড় কোম্পানি। ভবিষ্যতে এই কোম্পানি বাংলাদেশের জ্বালানিখাতে আরও বড় বিনিয়োগ করবে বলে আমরা আশা করি। বাংলাদেশের সবচেয়ে কাছের বন্ধুরাষ্ট্র চীন। বাংলাদেশ ও চীনের মধ্যে এই সর্ম্পক আগামীতে আরও জোরদার হবে।