দুপুর ২:২৮ বুধবার ২৫শে নভেম্বর, ২০২০ ইং

ব্রেকিং নিউজ:

কুমিল্লা দেবিদ্বারে ৫০ টাকার লোভ দেখিয়ে ৭ বছরের শিশুকে ধর্ষণ। | কুমিল্লা সদরে ডিবি পুলিশের অভিযানে অস্ত্র ও ৫ শত পিছ ইয়াবাসহ এক এক যুবক। | সিলেট চেম্বারের পরিচালনা পরিষদের ২০১৯-২০২১ সাল মেয়াদের দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত | কুমিল্লা সদর দক্ষিণে যাত্রীবাহি বাসচাপায় ৩ মোটরসাইকেল আরোহী নিহত। | মাধবপুরে দুই কেজি গাঁজা সহ ২ মাদক পাচারকারী আটক | ছেলের জন্য সকলের কাছে দোয়া চাইলেন ক্রিকেটার রুবেল | পুত্র সন্তানের বাবা হলেন রুবেল, মা-ছেলে দুজনেই সুস্থ আছেন | মাদক চোরাকারবারীদের ফাঁদে পরে, বিলিনের পথে মাধবপুরের চা শিল্প! | কুমিল্লা সদরে ট্রেনে কাটা পড়ে দুই ষ্কুল শিক্ষার্থী নিহত। আহত-৩ | কুমিল্লায় গোয়েন্দা পুলিশের অভিযানে ৫ হাজার পিছ ইয়াবাসহ সাংবাদিক শামীম আটক। |

শিমুলিয়া ঘাটে ঘরে ফেরা মানুষের ঢল

নিউজ ডেস্ক | জাগো প্রতিদিন .কম
আপডেট : August 20, 2018 , 6:40 am
ক্যাটাগরি : দেশজুড়ে
পোস্টটি শেয়ার করুন

ভোরের আলো ফুটতে না ফুটতেই সোমবার সকাল থেকে মুন্সীগঞ্জের শিমুলিয়া ঘাটে নেমেছে ঈদে ঘর ফেরা মানুষের ঢল। দক্ষিণবঙ্গের প্রবেশদ্বার মুন্সীগঞ্জের শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ী নৌরুটে নাব্য সংকট কিছুটা কাটিয়ে এখন ১টি রো রো ফেরিসহ মোট ১৭ টি ফেরি চলাচল করছে। ঘাট এলাকায় এখন প্রায় পাচ শত গাড়ি পারের অপেক্ষায় আছে। ঘাট এলাকায় ঈদের বাড়ী ফেরা গাড়ির স্বাভাবিক চাপ বলে দাবি করেছেন সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।

বিআইডাব্লিউটিসির শিমুলিয়া ঘাটের উপমহাব্যবস্থাপক শাহ মোঃ খালেদ নেওয়াজ জানান, নৌরুটে বর্তমানে ১৭টি ফেরি চলাচল করছে। নাব্য সংকটের কারণে চ্যানেলের মুখে ডাম্পফেরিগুলো চালাতে সমস্যা হচ্ছে। একটি রো রো ফেরি চলছে।

তিনি আরো জানান, ঘাটে ভোর সকাল (সোমবার) থেকে গাড়ির চাপ পরে। সব মিলিয়ে এখনো পাচশত গাড়ি হবে পারাপারের অপেক্ষায় । মোটরসাইকেল ও প্রাইভেট (ছোট )চ্যানেল গাড়ীর সংখ্যা বেশি। ওয়ানওয়ে হবার কারনে চ্যানেলের মুখে গিয়ে ফেরিগুলো অপেক্ষা করে।

এদিকে, লঞ্চ ঘাটে যাত্রীদের চাপ আছে তবে তা স্বাভাবিক। ঈদ উপলক্ষে রাত আটটার পরিবর্তে রাত দশটা পর্যন্ত লঞ্চ চলাচল করবে। এ রুটে ৮৭ টি লঞ্চ চলাচল করে। তবে, বর্তমানে একটি লঞ্চ চলছে না।

বিআইডাব্লিউটিএ’র শিমুলিয়া ঘাট পরিদর্শক মো. সোলেমান জানান, সকাল থেকেই যাত্রীদের চাপ লক্ষ্য করা গেছে লঞ্চ ঘাট এলাকায়। তবে ঈদের চাপ বলতে যা বোঝায়। ৮৭টি লঞ্চের মধ্যে একটি লঞ্চ নষ্ট। বাকি ৮৬ টি লঞ্চের মাধ্যমে যাত্রীরা পারাপার হচ্ছেন। যাত্রীরা ভোগান্তি ছাড়াই যাতায়াত করছে। সারা বছর রাত আটটা পর্যন্ত লঞ্চ চললেও ঈদ উপলক্ষে দুই ঘন্টা সময় বাড়ানো হয়েছে।