রাত ১০:৫৯ রবিবার ২৯শে নভেম্বর, ২০২০ ইং

ব্রেকিং নিউজ:

কুমিল্লা দেবিদ্বারে ৫০ টাকার লোভ দেখিয়ে ৭ বছরের শিশুকে ধর্ষণ। | কুমিল্লা সদরে ডিবি পুলিশের অভিযানে অস্ত্র ও ৫ শত পিছ ইয়াবাসহ এক এক যুবক। | সিলেট চেম্বারের পরিচালনা পরিষদের ২০১৯-২০২১ সাল মেয়াদের দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত | কুমিল্লা সদর দক্ষিণে যাত্রীবাহি বাসচাপায় ৩ মোটরসাইকেল আরোহী নিহত। | মাধবপুরে দুই কেজি গাঁজা সহ ২ মাদক পাচারকারী আটক | ছেলের জন্য সকলের কাছে দোয়া চাইলেন ক্রিকেটার রুবেল | পুত্র সন্তানের বাবা হলেন রুবেল, মা-ছেলে দুজনেই সুস্থ আছেন | মাদক চোরাকারবারীদের ফাঁদে পরে, বিলিনের পথে মাধবপুরের চা শিল্প! | কুমিল্লা সদরে ট্রেনে কাটা পড়ে দুই ষ্কুল শিক্ষার্থী নিহত। আহত-৩ | কুমিল্লায় গোয়েন্দা পুলিশের অভিযানে ৫ হাজার পিছ ইয়াবাসহ সাংবাদিক শামীম আটক। |

শচীন-সৌরভ-জয়াসুরিয়া-শেবাগদের ঘাড়ে নিঃশ্বাস ফেলছে তামিম!

নিউজ ডেস্ক | জাগো প্রতিদিন .কম
আপডেট : August 15, 2018 , 7:36 am
ক্যাটাগরি : খেলাধুলা
পোস্টটি শেয়ার করুন

সৌরভ গাঙ্গুলি, সাঈদ আনোয়ার, বীরেন্দ্র শেবাগ, টেন্ডুলকারদের পাশে নাম লেখাতে যাচ্ছেন টাইগার ওপেনার তামিম ইকবাল। এমনকি পেছনেও ফেলতে পারেন তাদের। উপমহাদেশের মধ্যে ওপেনিং ব্যাটসম্যান হিসেবে সর্বোচ্চ রানের তালিকায় এখন ৭ নম্বরে অবস্তান করছেন তামিম ইকবাল। ঘাড়ে নিঃশ্বাস ফেলছেন বীরেন্দ্র শেবাগ, সাঈদ আনোয়ারদের।

ওয়ানডেতে ১৭৯ ম্যাচে তামিমের রান ৬০১৮। তিনি আছেন তালিকার ৭ নম্বরে। অন্যদিকে তার আগে যথক্রমে ছয় ও পাচ নম্বরে আছেন বীরেন্দ্র শেবাগ ও সাঈদ আনোয়ার। ২১৪ ম্যাচে ওপেনার হিসেবে বীরেন্দ্র শেবাগের রান ৭৪১৮ ও ২২০ ম্যাচে সাঈদ আনোয়ারের রান ৮১৫০। ক্রিকেটকে অনেক আগেই বিদায় জানিয়েছেন শেবাগ-আনোয়ারেরা। আর সবকিছু ঠিক থাকলে বাংলাদেশের হয়ে আরো কমপক্ষে ৫-৬ বছর খেলা চালিয়ে যাবেন তামিম ইকবাল তাই তার সুযোগ থাকছে শেবাগ, গাঙ্গুলি, আনোয়ারদের।

এমনকি তামিম পেছনে ফেলতে পারেন সাবেক ভারতীয় ওপেনার সৌরভ গাঙ্গুলিকেও। ওপেনার হিসেবে ২৪২ ম্যাচে গাঙ্গুলির রান ৯১৪৬। আর তামিমের ১৮২ ম্যাচে ৬৩০৫।

বাংলাদেশ বছরে গড়ে ওয়ানডে খেলে প্রায় ১৬টি।সেক্ষেত্রে তামিম যদি আরো ৬ বছর খেলা চালিয়ে যান তাহলে তিনি ম্যাচ খেলবেন আরো ৯৬টি তার মোট ম্যাচ সংখ্যা হবে ২৭৬টি। আর তিনি যদি তার স্বাভাবিক গড় ৩৫ হারে এই ৯৬ ম্যাচে রান করেন তাহলে তিনি আরো ৩,৩৬০ রান করবেন সুতরাং তার মোট ওয়ানডে রান হবে ৯,৩৭৮ রান। সুতরাং তার সামনে সুযোগ থাকছে সৌরভ গাঙ্গুলি- জয়াসুরিয়াদের মত কিংবদন্তীকে পেছনে ফেলারও।

৩৩৪ ম্যাচে ১৫৩১০ রান নিয়ে এ তালিকার সবার উপরে আছেন ক্রিকেট ঈশ্বর শচীন টেন্ডুলকার। আর ১২,৭৪০ রান নিয়ে দ্বিতীয়তে আছেন সনাথ জয়সুরিয়া। হয়তো সময়ের ব্যবধানে তাদের পরেই নাম থাকবে টাইগার ওপেনার তামিম ইকবালের।

এক নজরে দেখে নিন উপমহাদেশের সর্বোচ্চ রানসংগ্রহকারী ওপেনারদের তালিকাটি-

১। শচীন টেনডুলকার (ভারত)- ৩৩৪ ম্যাচ, ১৫৩১০ রান।

২। সনাথ জয়সুরিয়া (শ্রীলংকা)- ৩৮৮ ম্যাচ, ১২৭৪০ রান।

৩। সৌরভ গাঙ্গুলি (ভারত)- ২৪২ ম্যাচ, ৯১৪৬ রান।

৪। তিলকরত্নে দিলশান (শ্রীলংকা)- ১৭৯ ম্যাচ, ৭৩৬৭ রান।

৫। সাইদ আনোয়ার (পাকিস্তান)- ২২০ ম্যাচ, ৮১৫০ রান।

৬। ভিরেন্দ্র শেহবাগ (ভারত)- ২১৪ ম্যাচ, ৭৪১৮ রান।

৭। তামিম ইকবাল (বাংলাদেশ)- ১৮২ ম্যাচ, ৬৩০৫ রান।

৮। উপুল থারাঙ্গা (শ্রীলংকা)- ১৮৩ ম্যাচ, ৫৯০৬ রান।

৯। রোহিত শর্মা (ভারত)- ৯৬ ম্যাচ, ৪৬২৭ রান।

১০। রমিজ রাজা (পাকিস্তান)- ১২৫ ম্যাচ, ৩৯৩৪ রান।