রাত ১১:১০ শুক্রবার ২৭শে নভেম্বর, ২০২০ ইং

ব্রেকিং নিউজ:

কুমিল্লা দেবিদ্বারে ৫০ টাকার লোভ দেখিয়ে ৭ বছরের শিশুকে ধর্ষণ। | কুমিল্লা সদরে ডিবি পুলিশের অভিযানে অস্ত্র ও ৫ শত পিছ ইয়াবাসহ এক এক যুবক। | সিলেট চেম্বারের পরিচালনা পরিষদের ২০১৯-২০২১ সাল মেয়াদের দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত | কুমিল্লা সদর দক্ষিণে যাত্রীবাহি বাসচাপায় ৩ মোটরসাইকেল আরোহী নিহত। | মাধবপুরে দুই কেজি গাঁজা সহ ২ মাদক পাচারকারী আটক | ছেলের জন্য সকলের কাছে দোয়া চাইলেন ক্রিকেটার রুবেল | পুত্র সন্তানের বাবা হলেন রুবেল, মা-ছেলে দুজনেই সুস্থ আছেন | মাদক চোরাকারবারীদের ফাঁদে পরে, বিলিনের পথে মাধবপুরের চা শিল্প! | কুমিল্লা সদরে ট্রেনে কাটা পড়ে দুই ষ্কুল শিক্ষার্থী নিহত। আহত-৩ | কুমিল্লায় গোয়েন্দা পুলিশের অভিযানে ৫ হাজার পিছ ইয়াবাসহ সাংবাদিক শামীম আটক। |

এসএসসিতে ১২টি বিষয়ে প্রশ্ন ফাঁস

নিউজ ডেস্ক | জাগো প্রতিদিন .কম
আপডেট : May 4, 2018 , 7:38 am
ক্যাটাগরি : নির্বাচিত,শিক্ষা
পোস্টটি শেয়ার করুন

এসএসসি পরীক্ষায় ১৭টি বিষয়ের মধ্যে ১২টির এমসিকিউ (বহু নির্বাচনী প্রশ্ন) অংশের প্রশ্নপত্র আংশিক ফাঁস হয়েছে। তবে সেটাও শুধু ‘খ’ সেটের ক্ষেত্রেই ঘটেছে। কোনো বিষয়ের রচনামূলক প্রশ্ন ফাঁস হয়নি। এ ছাড়া উন্মুক্তভাবেও কোনো পরীক্ষার প্রশ্ন ফাঁস হয়নি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের ‘ক্লোজ গ্রুপে’ স্বল্পসংখ্যক শিক্ষার্থী ফাঁস হওয়া প্রশ্ন পেয়েছে। পরীক্ষার হলে ঢোকার মাত্র ২০ মিনিট আগে বা এর কাছাকাছি সময়ে তারা এই প্রশ্ন পেয়েছে। এই ‘ক্লোজ গ্রুপে’র

সংখ্যাও খুবই কম। একেকটি গ্রুপে ১০ থেকে ১০০ জনের মতো সদস্য রয়েছে। এই ধরনের ৪০ থেকে ৫০টি গ্রুপে প্রশ্ন শেয়ার হয়েছে। এর মাধ্যমে চার থেকে পাঁচ হাজার শিক্ষার্থী পরীক্ষার কিছু সময় আগে প্রশ্ন পেয়ে থাকতে পারে। ২০১৮ সালের এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস হওয়ার অভিযোগ যাচাই-বাছাই কমিটির চূড়ান্ত প্রতিবেদনে এসব তথ্য উঠেছে।

গতকাল বৃহস্পতিবার এসএসসি ও সমমান পরীক্ষায় প্রশ্ন ফাঁসসংক্রান্ত আন্ত মন্ত্রণালয় কমিটির প্রতিবেদন বিষয়ে জাতীয় আইন-শৃঙ্খলা ও মনিটরিং কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হয় শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে। প্রশ্ন ফাঁস যাচাই-বাছাই কমিটির প্রতিবেদন সেখানে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রকাশ করা হয়।

সভায় শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেন, ‘মুষ্টিমেয় কয়েকজন শিক্ষার্থীর কারণে পরীক্ষা বাতিল করা হবে না। মাত্র পাঁচ হাজার শিক্ষার্থীর জন্য ২০ লাখ শিক্ষার্থীকে ভোগান্তিতে ফেলা ঠিক হবে না। এ কারণে কোনো পরীক্ষা বাতিল করা হবে না। তবে সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে। ’

মন্ত্রী বলেন, ‘চলমান এইচএসসি পরীক্ষায় প্রশ্ন ফাঁস বন্ধ করা চ্যালেঞ্জ ছিল। সবার সহযোগিতার কারণে এখন পর্যন্ত এইচএসসিতে কোনো প্রশ্ন ফাঁস হয়নি। ’ তিনি বলেন, ‘অনেকে বিচার-বিশ্লেষণ না করেই ঢালাওভাবে প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগ করে শিক্ষা মন্ত্রণালয়কে অপরাধী বানিয়েছেন। এটি আমাদের জন্য অবিচার করা হয়েছে। ’

প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে, সম্প্রতি শেষ হওয়া এসএসসি পরীক্ষায় ০.২৫ শতাংশ প্রশ্ন ফাঁস হয়েছে। এতে সুবিধা নিয়েছে পাঁচ হাজারের মতো শিক্ষার্থী। তবে মাদরাসা বোর্ডের কোনো প্রশ্ন ফাঁসের প্রমাণ পাওয়া যায়নি।

আন্ত মন্ত্রণালয় কমিটি তাদের সুপারিশে সব পরীক্ষার ফলের গ্রেডিং পদ্ধতি সংস্কার করার প্রস্তাব দিয়েছে। ধীরে ধীরে সব পাবলিক পরীক্ষায় এমসিকিউ পুরোপুরি তুলে দেওয়া, উচ্চশিক্ষায় ভর্তি পদ্ধতি পরিবর্তনের কথাও বলেছে কমিটি। তারা মনে করছে, উচ্চশিক্ষায় ভর্তিতে গ্রেডিং পদ্ধতির মূল্যায়ন করায় সবাই জিপিএ ৫ পেতে চায়। এ জন্য শিক্ষার্থী-অভিভাবকরা উদগ্রীব থাকেন। কেউ কেউ প্রশ্ন ফাঁসের পেছনেও ছোটেন।

এ ছাড়া কমিটি তাদের সুপারিশে প্রশ্নপত্র ফাঁস করার অভিযোগে গ্রেপ্তার হওয়া ব্যক্তিদের জিজ্ঞাসাবাদ, প্রশ্নপত্র ফাঁসকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি, মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে লেনদেনকারীদের তথ্য সংগ্রহ করে মোবাইল ফোন নম্বরগুলো চিহ্নিত করতে বলেছে।

গত ফেব্রুয়ারিতে এসএসসি পরীক্ষা চলাকালীন একের পর এক প্রশ্নপত্র ফাঁস হলে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কারিগরি ও মাদরাসা বিভাগের সচিব মো. আলমগীরকে প্রধান করে এই কমিটি গঠন করা হয়েছিল। যদিও এই কমিটি আগেই তাদের প্রতিবেদন জমা দিয়েছে। তবে গতকাল তা আনুষ্ঠানিকভাবে তুলে ধরা হলো।

সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন কারিগরি ও মাদরাসা বিভাগের প্রতিমন্ত্রী কাজী কেরামত আলী, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব সোহরাব হোসাইন, কারিগরি ও মাদরাসা বিভাগের সচিব মো. আলমগীর, পুলিশ, র‌্যাব, গোয়েন্দা সংস্থা ও বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।