সকাল ৭:৪১ রবিবার ২৪শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ইং

স্মার্টফোন ব্যবহার নিষিদ্ধ করেছে কুষ্টিয়া সরকারী মহিলা কলেজ

নিউজ ডেস্ক | জাগো প্রতিদিন .কম
আপডেট : জুলাই ২০, ২০১৮ , ৬:২৩ অপরাহ্ণ
ক্যাটাগরি : খুলনা,দেশজুড়ে
পোস্টটি শেয়ার করুন

কুষ্টিয়া সরকারি মহিলা কলেজ ক্যাম্পাসে স্মার্টফোন ব্যবহারে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে কলেজ কর্তৃপক্ষ। বুধবার সকালে কলেজে মোবাইল ব্যবহারে এ নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়।

শিক্ষার্থীদের ক্লাসমুখী করতে এবং শিক্ষার মান উন্নয়নের লক্ষ্যে এমন সিদ্ধান্ত বলছে কলেজ কর্তৃপক্ষ। শিক্ষার্থীরা এমন সিদ্ধান্তে ক্ষোভ জানিয়েছেন।

বিকেলে কলেজের অধ্যক্ষ শফিকুর রহমান বলেন, ‘শিক্ষার মান উন্নয়নের লক্ষ্যে কলেজ ক্যাম্পাসে স্মার্টফোন ব্যবহার নিষিদ্ধ করেছি। বেশ কিছুদিন ধরে লক্ষ করা যাচ্ছে, ক্লাস চলার সময় ছাত্রীরা ক্যাম্পাসে স্মার্টফোনে গান শুনছে এবং গল্প করছে। এতে ক্লাসে তারা মনোযোগী হতে পারছেন না। ক্লাসমুখী করতে এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।’ তিনি আরও বলেন, ছাত্রীরা ক্যাম্পাসে নরমাল ফোন সঙ্গে রাখতে পারবেন, কোনো স্মার্টফোন রাখতে পারবেন না। উচ্চমাধ্যমিক,¯স্নাতক ও স্নাতকোত্তর—সব শিক্ষার্থীর জন্য এ সিদ্ধান্ত প্রযোজ্য। এ ব্যাপারে নিয়মিত তদারকি করা হবে এবং কারও কাছে স্মার্টফোন পাওয়া গেলে তা কেড়ে নেওয়া হবে বলেও জানান অধ্যক্ষ শফিকুর রহমান।

কয়েকজন শিক্ষার্থী জানান, ডিজিটাল বাংলাদেশে স্মার্টফোন ব্যবহার করতে পারবেন না—এটা হতে পারে না। ক্লাসে মোবাইল ব্যবহার কেউ করেন না। ক্যাম্পাসে ফোন ব্যবহার করলে তো কোনো সমস্যা নেই। যেসব শিক্ষার্থী বাইরে থেকে ক্যাম্পাসে আসেন, তাঁদের জন্য এ নিষেধাজ্ঞায় সমস্যা হবে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্নাতক পর্যায়ের এক শিক্ষার্থী বলেন, ‘ক্লাসের বাইরে ক্যাম্পাসে সহপাঠীদের নিয়ে স্মার্টফোনের মাধ্যমে পড়াশোনা নিয়ে তথ্য বের করা হয়। কিন্তু সেটাও এখন করা যাবে না। আমরা তো আর ছোট নয় যে কিছু বুঝি না। স্নাতক পর্যায়ে এমন নিষেধাজ্ঞা ঠিক নয়।’

কুষ্টিয়া জেলা শিক্ষার্থী অভিভাবক কমিটির আহ্বায়ক জয়নাল আবেদিন প্রধান বলেন, ‘তথ্যপ্রযুক্তির যুগে ছাত্রীদের পিছিয়ে দেওয়ার পাঁয়তারা করছে কলেজ কর্তৃপক্ষ। ক্লাসে ব্যবহার না করার দিকে নজর রাখা দরকার। তা না করে পুরো ক্যাম্পাসে নিষেধাজ্ঞা—এটা নারীশিক্ষার অগ্রগতিকে টেনে ধরা হবে।’

কুষ্টিয়ার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক, শিক্ষা ও আইসিটি) হাসান হাবিব বলেন, ‘বর্তমান সময়ে স্মার্টফোন ব্যবহার করে তথ্যপ্রযুক্তি সম্পর্কে বেশি জানতে পারেন শিক্ষার্থীরা। আর স্নাতক পর্যায়ের শিক্ষার্থীরা ছোট নন, তাঁদের ওপর এ ধরনের নিষেধাজ্ঞা ঠিক নয়। এটা নিয়ে অধ্যক্ষের সঙ্গে কথা বলা হবে।’