রাত ২:১৭ বুধবার ২৪শে নভেম্বর, ২০২০ ইং

ব্রেকিং নিউজ:

কুমিল্লা দেবিদ্বারে ৫০ টাকার লোভ দেখিয়ে ৭ বছরের শিশুকে ধর্ষণ। | কুমিল্লা সদরে ডিবি পুলিশের অভিযানে অস্ত্র ও ৫ শত পিছ ইয়াবাসহ এক এক যুবক। | সিলেট চেম্বারের পরিচালনা পরিষদের ২০১৯-২০২১ সাল মেয়াদের দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত | কুমিল্লা সদর দক্ষিণে যাত্রীবাহি বাসচাপায় ৩ মোটরসাইকেল আরোহী নিহত। | মাধবপুরে দুই কেজি গাঁজা সহ ২ মাদক পাচারকারী আটক | ছেলের জন্য সকলের কাছে দোয়া চাইলেন ক্রিকেটার রুবেল | পুত্র সন্তানের বাবা হলেন রুবেল, মা-ছেলে দুজনেই সুস্থ আছেন | মাদক চোরাকারবারীদের ফাঁদে পরে, বিলিনের পথে মাধবপুরের চা শিল্প! | কুমিল্লা সদরে ট্রেনে কাটা পড়ে দুই ষ্কুল শিক্ষার্থী নিহত। আহত-৩ | কুমিল্লায় গোয়েন্দা পুলিশের অভিযানে ৫ হাজার পিছ ইয়াবাসহ সাংবাদিক শামীম আটক। |

শবে বরাতে ঘরেই বানিয়ে ফেলুন মজাদার ছয় হালুয়া

নিউজ ডেস্ক | জাগো প্রতিদিন .কম
আপডেট : May 1, 2018 , 11:27 am
ক্যাটাগরি : নির্বাচিত,রেসিপি
পোস্টটি শেয়ার করুন

শবে বরাতের দিন মানেই হালুয়া রুটি। সবাই বাসায় বেশ আয়োজন করেই বানায় নানা পদের হালুয়া। আজকাল দোকানেও পাওয়া যায়। তবে বাসায় বানানো হালুয়ার স্বাদ ও গন্ধ থাকে অন্যরকম।

পাঠকের জন্য আজ রইলো পবিত্র শবে বরাতের জন্য ৫ পদের হালুয়ার রেসিপি। পছন্দ অনুযায়ী বেছে বানিয়ে ফেলুন –

গাজরের হালুয়া

উপকরণ : গাজর-দেড় কেজি (কুচি বা গ্রেট করা), চিনি- দুই কাপ, দুধ- ২ লিটার, এলাচ- ৩/৪ টা, দারচিনি- ২/৩ টা, কাজুবাদাম- ১০-১২টা, ঘি- ৩-৪ টেবিল চামচ।

প্রণালি : প্রথমে দুধ

জ্বাল দিয়ে কিছুটা ঘন করে নিতে হবে। গ্রেট করা গাজর দুধের মধ্যে দিয়ে ভালো করে নাড়তে থাকুন। মধ্যম আঁচে চুলায় নাড়তে থাকুন যতক্ষণ না গাজর নরম হয়। এবার চিনি, এলাচ, দারচিনি দিয়ে আস্তে আস্তে নাড়ুন। দুধ শুকিয়ে আসা পর্যন্ত মাঝে মাঝে নাড়তে থাকুন। দুধ শুকিয়ে আসলে অল্প আঁচে ঘি দিয়ে একবার নেড়ে দিন। হালুয়া পাত্রের সাইডে যখন আর লাগবেনা আর সোনালি বাদামি রং হবে তখন নামিয়ে নিয়ে কাজু বাদাম কুচি দিয়ে গরম গরম পরিবেশন করুন।

খেজুরের হালুয়া

উপকরণ : বিচি ছাড়া খেজুর ২ কাপ, ঘন তরল দুধ ২ কাপ, চিনি ১/৪ কাপ, মাওয়া ১ কাপ, ঘি বা তেল পরিমাণ মতো এবং এলাচ ২/৩ টা।

প্রণালী : প্রথমে ২ কাপ ঘন দুধের সাথে খেজুর সিদ্ধ করে পানি শুকিয়ে নিন। নরম হলে ব্লেন্ড করে বা বেটে নিন। এরপর পাত্রে তেল বা ঘি দিয়ে তাতে পরিমাণ মতো এলাচ দিন। এবার খেজুরের মিশ্রণটি ঢেলে দিয়ে মাঝারি আঁচে নাড়তে থাকুন। এরপর ফুটে উঠলে চিনি এবং ১ চিমটি লবন দিন।

এবার চুলার আঁচ কমিয়ে নাড়তে থাকুন। এভাবে নাড়তে নাড়তে হালুয়া ঘিয়ের উপর উঠে এলে মাওয়া গুঁড়ো দিয়ে মিক্স করে নিন। তারপর প্লেটে ঘি মাখিয়ে হালুয়া ঢেলে নিন। চেপে চেপে সমান করে দিন। হয়ে গেলো মজাদার হালুয়া। এবার ঠান্ডা হলে পছন্দ অনুযায়ী কেটে বাদাম দিয়ে পরিবেশন করুন।

সুজির মোহনভোগ

উপকরণ : সুজি ২ কাপ, চিনি দেড় কাপ পরিমাণ, ঘি ১/৪ কাপ, ঘন দুধ দেড় কাপ, কিশমিশ, পেস্তাবাদাম, এলাচ গুঁড়ো পরিমাণ মতো।

প্রণালি : প্রথমে সুজি লাল করে ভেজে নিন। এবার কড়াইতে ঘি দিন। ঘি গরম হয়ে এলে সুজি ও দুধ দিয়ে ৫ মিনিট নেড়ে নিন। তারপর চিনি দিয়ে আরও ৫ মিনিট নাড়ুন। এবার কিশমিশ, পেস্তাবাদাম, এলাচ গুঁড়া দিয়ে নামিয়ে একটি ঘি মাখানো ট্রে-তে বিছিয়ে নিন। এরপর চেপে চেপে সমান করুন। কিছুক্ষণ রেখে ঠান্ডা হলে সুন্দর করে কেটে পরিবেশন করুন সুজির মোহনভোগ।

পেশোয়ারি হালুয়া

উপকরণ : কাঠ বাদাম/পেস্তা বাদাম আধা কাপ, নারকেল বাটা আধা কাপ, ছানা আধা কাপ, চিনি ১ কাপ, এলাচ গুঁড়ো ১ চা চামচ, তরল দুধ আধা কাপ, মাওয়া আধা কাপ, ঘি ৩ টেবিল চামচ, জাফরান।

প্রণালি : প্রথমে তরল দুধ ও বাদাম ব্লেন্ড করুন। এরপর চুলায় জ্বাল দিয়ে পানি শুকিয়ে নিন। এরপর টি ননস্টিক প্যানে ঘি এবং বাদামের মিশ্রণ দিয়ে নাড়তে থাকুন। তারপর ছানা, নারিকেল বাটা, চিনি দিয়ে নাড়ুন। এরপর মাওয়া ও এলাচ দিয়ে ভুনে নিন। এবার সব কিছু একসঙ্গে ভুনে যখন প্যানের গা থেকে উঠে আসবে; তখন বাটিতে ঢেলে কিশমিশ, বাদাম হালুয়া ওপরে ছড়িয়ে দিন। এবার সাজিয়ে পরিবেশন করুন।

বুটের ডালের হালুয়া

উপকরণ : হাফ কেজি বুটের ডাল, এক কাপ ঘন দুধ (ভালো করে জ্বাল দিয়ে দুই কাপকে এক কাপে পরিণত করলে ভালো হয়), পরিমানমত এলাচ, পরিমানমত দারুচিনি, পাঁচটি তেজপাতা, পরিমানমত ঘি, হাফ কাপ তেল, কিছু কিসমিস, চিনি।

প্রণালি : বুটের ডাল পানিতে ভিজিয়ে রাখুন। ভালমত ভিজে গেলে একে সিদ্ধ করে নিন। সিদ্ধ বুটের ডাল বেটে বা বেইল্ড করে পেষ্ট/কাই বানিয়ে ফেলুন এবং এক কাপ গরম ঘন দুধ দিয়ে মাখিয়ে নিন। এবার হাড়িতে দুই চামচ ঘি এবং হাফ কাপ তেল গরম করে তাতে কয়েকটা এলাচ, কয়েক টুকরা দারুচিনি এবং কয়েকটা তেজপাতা দিয়ে দিন। তেল ভালো গরম হলে বুটের ডালের কাই দিয়ে দিন এবং নাড়িয়ে ভালো করে মিশিয়ে দিন।

এবার চিনি দিন এবং নাড়তে থাকুন। হালুয়া রান্নায় এই অংশটা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এবং বিপদজনক। খেয়াল রাখতে হবে নাড়তে নাড়তে যখন ঘন হচ্ছে তখন পুড়ে না যায়! এভাবে নাড়তে নাড়তে হালুয়ায় পানি শুকিয়ে গেলেই হালুয়া তৈরি হয়ে গেল। এরপর একে আপনার সুবিধামত বরফি করে পরিবেশন করতে পারেন।

ছোলার ডালের হালুয়া

উপকরণ : ছোলার ডাল হাফ কেজি, দুধ এক লিটার, চিনি পরিমাণমত, ঘি এক কাপের চতুর্থাংশ, এলাচ পরিমাণমত, দারুচিনির গুঁড়ো, কিসমিস পরিমাণমত, পেস্তা বাদাম কুচি।

প্রণালি : প্রথমে শুকনো ছোলাকে অন্তত ঘণ্টাপাঁচেক ভিজিয়ে রাখুন। এরপর ভালমতো ভিজে গেলে একে ঠিকমতো ধুয়ে দুধের সাথে মিশিয়ে ভাল করে সেদ্ধ করে নিতে হবে। এরপর একে কড়াইতে নিয়ে এর সাথে ঘি এবং পরিমাণমত চিনি মিশিয়ে নাড়তে হবে। নাড়তে নাড়তে মিশ্রণ কিছুটা ঘন হয়ে এলে এলাচ ও দারুচিনির গুঁড়ো যোগ করুন। সম্পূর্ণ শুকানো পর্যন্ত নাড়তে হবে। সম্পূর্ণ শুকিয়ে গেলেই হালুয়া হয়ে যাবে এবং আপনার ইচ্ছেমত পদ্ধতিতে একে পরিবেশন করতে পারবেন। তবে চুলা থেকে নামাবার পূর্বমুহূর্তে কিসমিস এবং পেস্তা বাদামের কুঁচি যোগ করলে স্বাদ ভাল হয়।