দুপুর ১২:৫৭ বৃহস্পতিবার ২০শে জুন, ২০১৯ ইং

চট্টগ্রামে তিন খুন মামলায় ৩ জেএমবি সদস্য রিমান্ডে

নিউজ ডেস্ক | জাগো প্রতিদিন .কম
আপডেট : জুলাই ১৯, ২০১৮ , ১:৩১ অপরাহ্ণ
ক্যাটাগরি : চট্টগ্রাম,দেশজুড়ে
পোস্টটি শেয়ার করুন

চট্টগ্রাম মহানগর তৃতীয় আদালতের হাকিম আব্দুল কাদের সোমবার তাদের হেফাজতে নেওয়ার এই আদেশ দেন।

ওই তিন জেএমবি সদস্য হলেন- চট্টগ্রামে জেএমবির সেকেন্ড-ইন-কমান্ড বুলবুল আহমেদ সরকার ওরফে আপেল ওরফে ফুয়াদ ওরফে মেহেদী ওরফে রকি (২৬), মাহবুবুর রহমান ওরফে খোকন (৩০) এবং মো. শাহজাহান ওরফে কাজল (২৮)।

নগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (প্রশিকিউশন) কাজী মুত্তাকি ইবনু মিনান বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, সদরঘাট থানার ওই মামলায় তিন জেএমবি সদস্যের ১০ দিন করে রিমান্ডের আবেদন করা হয়। আদালত শুনানি শেষে প্রত্যেকের দুদিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন।”

২৩ সেপ্টেম্বর রাতে সদরঘাট থানার মাঝিরঘাট এলাকায় গ্রেনেড বিষ্ফোরণে রফিক, রবিউল নামে দুই ছিনতাইকারী এবং সত্যগোপাল ভৌমিক নামে এক ব্যক্তি নিহত হন।

এ মামলার তদন্ত করতে গিয়ে ৫ অক্টোবর গোয়েন্দা পুলিশ এই তিনজনসহ পাঁচ জেএমবি সদস্যকে গ্রেনেড, বিষ্ফোরক ও অস্ত্রসহ গ্রেপ্তার করে।

গ্রেপ্তার পাঁচজনের মধ্যে ৬ অক্টোবর ভোররাতে জাবেদ নামে একজনকে নিয়ে বিষ্ফোরক উদ্ধারে গেলে তিনি গ্রেনেড বিষ্ফোরণে নিহত হন বলে দাবি করে গোয়েন্দা পুলিশ।

এরপর এই তিনজন ও মো. সুজন ওরফে বাবু নামে একজনসহ মোট চারজনের বিরুদ্ধে অস্ত্র,বিস্ফোরক ও সন্ত্রাসবিরোধী আইনে কর্ণফুলী থানায় তিনটি মামলা করে পুলিশ। এসব মামলায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য গত ৭ অক্টোবর চার জেএমবি সদস্যকে প্রতি মামলায় পাঁচদিনের পুলিশ হেফাজতে নেওয়ার অনুমতি দেয় আদালত।

এছাড়া মো. সুজন ওরফে বাবু ৪ সেপ্টেম্বর বায়েজিদ থানার শেরশাহ বাংলা বাজার এলাকায় কথিত ফকির ন্যাংটা মামু ও তার খাদেম আব্দুল কাদেরকে খুনের সঙ্গে জড়িত থাকার দায় স্বীকার করে ১৬৪ ধারায় আদালতে জবানবন্দি দেয়।

গোয়েন্দা পুলিশের এসআই সন্তোষ চাকমা বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, সন্ত্রাস বিরোধী আইনের মামলায় রিমান্ড শেষ করে চারজনকে আদালতে পাঠানো হয়েছে। বিষ্ফোরক আইনের মামলায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পাঁচদিনের রিমান্ডে আনা হয়েছে।