সন্ধ্যা ৭:৫৫ বুধবার ২৫শে নভেম্বর, ২০২০ ইং

ব্রেকিং নিউজ:

কুমিল্লা দেবিদ্বারে ৫০ টাকার লোভ দেখিয়ে ৭ বছরের শিশুকে ধর্ষণ। | কুমিল্লা সদরে ডিবি পুলিশের অভিযানে অস্ত্র ও ৫ শত পিছ ইয়াবাসহ এক এক যুবক। | সিলেট চেম্বারের পরিচালনা পরিষদের ২০১৯-২০২১ সাল মেয়াদের দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত | কুমিল্লা সদর দক্ষিণে যাত্রীবাহি বাসচাপায় ৩ মোটরসাইকেল আরোহী নিহত। | মাধবপুরে দুই কেজি গাঁজা সহ ২ মাদক পাচারকারী আটক | ছেলের জন্য সকলের কাছে দোয়া চাইলেন ক্রিকেটার রুবেল | পুত্র সন্তানের বাবা হলেন রুবেল, মা-ছেলে দুজনেই সুস্থ আছেন | মাদক চোরাকারবারীদের ফাঁদে পরে, বিলিনের পথে মাধবপুরের চা শিল্প! | কুমিল্লা সদরে ট্রেনে কাটা পড়ে দুই ষ্কুল শিক্ষার্থী নিহত। আহত-৩ | কুমিল্লায় গোয়েন্দা পুলিশের অভিযানে ৫ হাজার পিছ ইয়াবাসহ সাংবাদিক শামীম আটক। |

লা‌গেজ পা‌র্টির পণ্য বিক্রি : ৭ প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা

নিউজ ডেস্ক | জাগো প্রতিদিন .কম
আপডেট : April 29, 2018 , 1:12 pm
ক্যাটাগরি : অপরাধ ও দুর্নীতি
পোস্টটি শেয়ার করুন

অবৈধ পন্থায় বিদেশি পণ্য এনে বিক্রির দায়ে রাজধানীর মৌচাক ও আনারকলি মার্কেটে সাতটি প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা করেছে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর।

প্রতিষ্ঠানগুলো হলো- মৌচাক মার্কেটের সামিয়া কসমেটিক্স, মৌচাক কর্ণার, মাই চয়েজ, প্যারাগন কসমেটিক্স, ও রংধনু। আর আনারকরি মার্কেটের শপিং ডটকম, স্টাইল কর্ণার।

শনিবার রাজধানীর মৌচাক ও আনারকলি মার্কেটে অভিযোন চালিয়ে এসব প্রতিষ্ঠানকে এক লাখ ১৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। একই দিন রাজধানী কারওয়ান বাজারে

তিনটি রেস্টুরেন্টকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

অভিযানের নেতৃত্ব দেন অধিদফতরের ঢাকা বিভাগীয় কার্যালয়ের উপ পরিচালক (উপসচিব) মনজুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার। এসময় সঙ্গে ছিলেন অধিদফতরের ঢাকা জেলা অফিসের সহকারী পরিচালক আব্দুল জব্বার মণ্ডল। বাজার অভিযানের সার্বিক সহযোগিতা করে আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ান (এপিবিএন) -১১ এর সদস্যরা।

সহকারী পরিচালক আব্দুল জব্বার মণ্ডল বলেন, শনিবার মৌচাক ও আনারকলি মার্কেটে অভিযান পরিচালনা করা হয়। এসময় অবৈধ পন্থায় আনা( লা‌গেজ পা‌র্টির) পণ্য বিক্রির দায়ে ৭টি প্রতিষ্ঠানকে এক লাখ ১৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

তিনি বলেন, অভিযুক্ত প্রতিষ্ঠানগুলো যেসব বিদেশি কসমেটিক্স বিক্রি করছে তার গায়ে আমদানিকারকের নাম লেখা ছিল না। অর্থাৎ এগুলো অবৈধ পন্থায় আনা ( লা‌গেজ পা‌র্টির) পণ্য। এটি কি আসলে বিদেশি পণ্য নাকি দেশের তৈরি নকল পণ্য তাও চেনার উপায় নেই। তারা ইচ্ছা মত মূল্য নিয়ে ভোক্তাদের ঠকাচ্ছে। এতে করে একদিকে অবৈধ ব্যবসা করছে।

অন্যদিকে আমদানিকারকরা সরকারকে ভ্যাট/ ট্যাক্স দিয়েই তাদের পণ্য বিক্রয় করেন। কিন্তু লা‌গেজ পা‌র্টির পণ্যে তা দিয়ে ফাঁকি দিচ্ছে। যা আইন অনুযায়ী দণ্ডনীয়। এ অপরাধে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন-২০০৯ এর ৩৭ ধারা অনুযায়ী, প্রতিষ্ঠানগুলোকে জরিমানা করা হয়েছে। একই সঙ্গে প্রতিষ্ঠানগুলোকে সতর্ক করা হয়েছে। পরবর্তীতে এ ধরনের অপরাধ করলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।